বাবুগঞ্জে শিশু ও গর্ভবতী মাকে মধ্যযুগীয় নির্যাতন

►বরিশাল অফিস ঃ
তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাবুগঞ্জে ৮ বছরের এক শিশুকে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালিয়েছে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। এসময় শিশুটিকে উদ্ধার করতে গেলে তার ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মাকেও এলোপাতাড়ি মেরে রক্তাক্ত করা হয়েছে। গুরুতর আহতাবস্থায় তাদের উভয়কে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ঢাকা থেকে উপজেলার হিজলা গ্রামের নানাবাড়িতে বেড়াতে আসা শিশু রাতুলের সাথে বৃহস্পতিবার সকালে খেলার সময় প্রতিবেশি এক শিশুর ঝগড়া হয়। শিশুদের মধ্যে ওই তুচ্ছ ঝগড়ার জের ধরে গতকাল তাদের পার্শ¦বর্তী এলাকা কলসগ্রামের সন্ত্রাসী মামুন তার ৪/৫ জন সহযোগী নিয়ে শিশু রাতুলকে তার নানাবাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। এসময় সন্ত্রাসী মামুন ওই ৮ বছরের শিশু রাতুলকে বেদম মারপিট করে গাছের সাথে বেঁধে রাখে। এসময় শিশুটির ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মা খাদিজা বেগম সন্তানকে উদ্ধারে এগিয়ে গেলে তাকেও এলোপাতাড়ি লাথি-ঘুষি মেরে গুরুতর জখম করে তারা। সন্ত্রাসীদের হামলায় এসময় গর্ভের শিশুটি আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে রক্তক্ষরণ শুরু হলে অজ্ঞান হয়ে যান খাদিজা বেগম বলে জানান তার বৃদ্ধ বাবা রব হাওলাদার। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গর্ভের শিশু ও তার মায়ের অবস্থা এখন আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা। এ ঘটনায় বিকেলে উপজেলার বিমানবন্দর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এদিকে অভিযুক্ত সন্ত্রাসী মামুনের বিরুদ্ধে এর আগেও এলাকায় চুরি-ছিনতাই ও চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অভিযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।