বাঙালি জাতি শোষিত হবার মূল কারণ ছিল নিজেদের ঐক্যের অভাব–নাসিম

জবি প্রতিনিধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শাখা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বুধবার দুপুরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৯৯তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, হাজার বছর ধরে বাঙালি জাতি শোষিত হয়েছে- এর মূল কারণ ছিল তাদের মধ্যে ঐক্যের অভাব। বঙ্গবন্ধুই একমাত্র ব্যক্তি যিনি ধর্ম-বর্ণ, নির্বিশেষে নারী-পুরুষ, ধনী-গরিব, শিশু-বৃদ্ধ সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করতে পেরেছিলেন ৭১’এর মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়। বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছিল বলেই বাংলাদেশ আজ স্বাধীন।

তিনি বলেন, ‘এই উত্তাল মার্চেই বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছিল বলে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু এমনই একজন ব্যক্তি ছিলেন তাকে কখনই মুছে ফেলা যাবে না। বঙ্গবন্ধু কখনও অন্যায়ের সঙ্গে আপোষ করেননি। মৃত্যুর কাছে বারবার গিয়েও তিনি আপোষ করেনি।’ এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুর জন্ম মাস ও স্বাধীনতার মাসে আমাদের বঙ্গবন্ধুর মতো উদার ও সাহসী হয়ে দেশ গঠনে একত্রে কাজ করার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জগন্নাথ
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ নামক ভূখণ্ডটির স্বাধীনতা ও আধুনিক রাষ্ট্রের জনক ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। দার্শনিক হেগেন-এর মতে, কোনো জাতির সর্বশ্রেষ্ঠ সৃষ্টি হচ্ছে রাষ্ট্র তৈরি করা; সেই রাষ্ট্রটা বঙ্গবন্ধু আমাদের দিয়ে গেছেন। ৭৫’ এর ১৫ আগস্ট সেই রাষ্ট্রটাকে আমরা হারিয়ে ফেলি। ১৫ আগস্ট কেবলমাত্র সামরিক অভ্যুত্থান নয়, ওই সময় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে প্রায়ই সামরিক অভ্যুত্থান হতো। বিশেষ করে আফ্রিকা, ল্যাটিন আমেরিকা এবং এশিয়া মহাদেশে- সে সময় এটা নিত্ত-নৈমত্তিক ব্যাপার ছিল। সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে রাষ্ট্রের ক্ষমতার বদল হতো- কিন্তু ৭৫’ এর ১৫ আগস্ট পরবর্তী সময় শুধু ক্ষমতা নয় পূর্ব পাকিস্তান কায়েম করা হয়েছিল।’

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মো. তরিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিন রাসেলের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন।
আলোচনা শেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত বিশেষ রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এ সময় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও সাংবাদিক প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।