তিতাস,বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোরের বাগাতিপাড়ায় মাষ্টার ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেন্ট সেন্টার নামের ভূয়া প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করায় মতিউর রহমান (৩৪) কে এক মাসের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বৃহস্প্রতিবার সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রিয়াংকা দেবী পাল এ আদেশ দেন। দন্ডাদেশ প্রাপ্ত মতিউর রহমান বাগাতিপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভোকেশনাল শাখার সহকারী শিক্ষক বলে জানা যায়।
ইউএনও অফিস সূত্রে জানা যায়, বাগাতিপাড়া পৌরসভার ঘোরলাজ মহল্লায় প্রায় তিন বছর যাবৎ কোন অনুমোদন ছাড়া মিষ্টিমনি ফার্মেসী পরিচালনা করে আসছিলেন মতিউর রহমান। সম্প্রতি তার বাড়ির সামনে মাষ্টার ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেন্ট সেন্টার নামের আরেকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ব্যানার টানান তিনি। সেই ডায়াগনস্টিক সেন্টার ছিলনা সরকার কর্তৃক কোনো অনুমোদন। এছাড়া ডায়াগনস্টিক সংশ্লিষ্ট কোন প্রকার সনদ ছাড়াই শিক্ষক মতিউর রহমান রোগীদের নিজ শোবার ঘরে নিজেই ইসিজি করতেন । বিষয়টি নজরে এলে বৃহস্প্রতিবার সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রিয়াংকা দেবী পাল ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় মতিউর রহমান মাষ্টার কে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট প্রিয়াংকা দেবী পাল।