বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রাথমিক শিক্ষকদের সংগ্রামের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ প্রাথমিক শিকক্ষক সমিতির জাতীয় সম্মেলন আজ শনিবার সকালে রাজধানী ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ।
উদ্বোধনী সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার। সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা অনুরাগী ও আওয়ামী লীগ নেতা সুজিত রায় নন্দী, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুর রশিদ, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা গবেষণা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল হক আলো, কাজী মিজানুল ইসলাম।
সম্মেলনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ বলেন, প্রতিটি বিদ্যালয়ে শিশুদেরকে শতভাগ মানসম্মত পাঠদানের মাধ্যমে প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিত করতে হবে প্রাথমিক শিক্ষকদেরকে। প্রাথমিক শিকক্ষকরা হলো শিক্ষা শুরুর মূল গুরু। তাদের কাছ থেকে শিশুরা মানসম্মত শিক্ষা পেলে ভবিষ্যৎ শিক্ষা জীবনে তাদের সাফল্য অর্জন করতে সহায়ক হবে। তিনি প্রতিটি বিদ্যালয়ে শতভাগ প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান জানান। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে যেন কোনো জঙ্গি সৃষ্টি না হতে পারে সেই জন্য শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে জঙ্গিবাদবিরোধী ভুমিকা পালনেরও আহ্বান জানান। তিনি বঙ্গবন্ধু ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শতভাগ শিক্ষা জাতীয়করণে ভুমিকার কথা স্মরণ করেন।
দ্বিতীয় অধিবেশনে কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিল অধিবেশনের শুরুতেই বক্তব্য রাখেন নির্বাচন কমিশনের সদস্য হাফিজ আহমেদ, সমিতির নেতা আতিকুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আবুল কাশেম, ফিরোজ হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান শাহীন আব্দুল হক প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। কাউন্সিল অধিবেশনের শুরুতেই গঠনতন্ত্র সংশোধন প্রস্তাব উত্থাপন করা হলে তারা সর্বসম্মতভাবে গৃহিত হয়।
কাউন্সিল অধিবেশনে আতিকুর রহমানকে সভাপতি, মো. আবুল বাশারকে কার্যকরি সভাপতি, হাবিবুর রহমানকে সহ-সভাপতি, আবুল কাসেমকে সাধারণ সম্পাদক, ফিরোজ হোসেনকে নির্বাহী সম্পাদক, আব্দুল হককে সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক, মোস্তাফিজুর রহমান শাহীনকে সাংগঠনিক সম্পাদক, এ কে এম ইলিয়াস আল মাহমুদকে অর্থ সম্পাদক করে ১৮১ সদস্য বিশিষ্ট বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন করা হয়।