বাংলাদেশ অন্য দেশের ভাষা ও সংস্কৃতিকে মর্যাদা দেয়–নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

যুগবার্তা ডেস্কঃ ইরানি নওরোয (নববর্ষ) ও বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে ঢাকাস্থ ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির যৌথ উদ্যোগে আজ শিল্পকলা একাডেমিতে এক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ অন্য দেশের ভাষা ও সংস্কৃতিকে মর্যাদা দেয়। বাংলাদেশের ভাষা ও সংস্কৃতির ঐতিহ্য রয়েছে। বঙ্গবন্ধু আমাদের একটি স্বাধীন দেশ দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু সকলের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রেখেছেন। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা শান্তি ও সম্প্রীতির মানবতার পতাকা উড়িয়ে বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছেন।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, সংস্কৃতিকে লালন করে আমাদের জ্ঞানার্জনকে বিকশিত করতে পারলে বিজ্ঞান সমৃদ্ধ হবে, মানব জাতি উপকৃত হবে। আলোর পথে দৃষ্টি প্রসারিত করে মানুষের কল্যাণে কাজ করতে হবে।

শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের ইরানি ভিজিটিং প্রফেসর ড. কাজেম কাহদুয়ী, বিশিষ্ট নাট্য অভিনেতা ও পরিচালক মামুনুর রশীদ এবং ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কালচারাল কাউন্সেলর ড. মাহদী হোসেইনী ফায়েক ।

শেষে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সাংস্কৃতিক পর্বে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীবৃন্দ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সাংস্কৃতিক দল অংশগ্রহণ করবেন।