বাংলাদেশে চলমান লেখকদের কুলিনত্র এবং মানসিক দাসত্ব

32

জাকারিয়া আজাদ বিপ্লবঃ বর্তমান সময়ের, আমাদের এই গ্রহের প্রচলিত বিদ্যমান প্রচলিত, ভাষা সংস্কৃতি ও সাহিত্যের দিকে নজরদিলে, আমরা দেখতে পাব নানা প্রকার বৈচিত্র্য ও ভিন্নতা রয়েছে। এক ভাষার লেখা গল্প কবিতা অন্য ভাষায় অনুবাদ করে প্রচার করা হয়। একটা ভালো কাজ নিশ্চয়। এর সাথে ডুকে পড়ে আর একটি মানসিক বৈকাল্যতা।ধরুন কোন একটা ভাষার কবিতা বাংলা ভাষায় অনুবাদকরে ছাপানো হলো, দেখা গেল তারা একটা বিশেষ ঢং কৌশলে রীতি পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছ। পরবর্তী সময়ে আমরা ঐ রীতি উপর পরে থাকি। ওটাকে একটা সংবিধান হিসেবে ধরেনেয় তারা আর মনে করে যেন নিয়মের বাহিরে যাওয়া যাবেন। পেত্রাক সনেট লিখেছিল আমাদের বাংলা ভাষায় মাইকেল মধুসূদন দত্ত আমদানি করলেন।এভাবে হাইকু,পানতুম, ছড়া কবিতা ছন্দের তাল মাত্র, ধরা বাধা নিয়ম গুল। আমরা কেন সৃষ্টিশীলতায় এসকল নিয়ম ভাঙতে পারিনা। কেন গল্প কবিতা নাটক উপন্যাসকে উপেক্ষা করে নতুন কোন একটা নিয়ে আসছি না? প্রথা নিয়মের বেড়াজালের দাসত্বের শৃঙ্খল ভেঙে নতুন নতুন ধারায় নতুন আঙ্গিকে সাহিত্য সৃষ্টি করি আমরা হই প্রথ সৃষ্টিকারী প্রমথ চৌধুরীর মত।
চলবে—।-লেখক, জাকারিয়া আজাদ বিপ্লব, (বিএসএস, এম এসএস) কবি ও মুক্ত মনের লেখক।