বশেমুরবিপ্রবিতে একাডেমিক ভবনের স্থানে আইসিটি পার্ক, শিক্ষার্থীদের আল্টিমেটাম

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) অভ্যন্তরে ২য় একাডেমিক ভবনের জায়গায় আইসিটি পার্ক নির্মাণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। একইসাথে ১০ কর্মদিবসের মধ্যে এমন হটকারিতা সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের আল্টিমেটাম।

বুধবার (১৭ আগষ্ট) দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সামনে এ মানববন্ধনটি অনুস্থিত হয়।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন এমনিতেই আমাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার প্ল্যানের বাইরে গিয়ে আমাদের ২য় একাডেমিক ভবনের জায়গায় আইসিটি পার্ক নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে বাড়বে ক্যাম্পাসের ভিতর বহিরাগতদের আনাগোনা। যা কিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ঝুঁকি বাড়াবে। কিছুদিন আগে পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থীদের মূল ফটকের সামনে স্থানীয়দের দ্বারা হামলার শিকার হওয়া এর একটি উদাহরণ। তাই আমরা চাই না কাম্পাসের ভিতর এই আইসিটি পার্ক হোক।

এ সময় তারা আরও দাবি করেন, আমাদের পর্যাপ্ত ক্লাসরুমের ব্যবস্থা নেই। যেখানে আমাদের আরও একটি একাডেমিক ভবন প্রয়োজন, সেখানে আমাদের ২য় একাডেমিক ভবনের জায়গায় আইসিটি পার্ক নির্মাণের সিদ্ধান্ত সত্যিই হতাশাজনক। আমরা এই আইসিটি পার্ক চাই না। আমরা চাই আমাদের একাডেমিক ভবন হোক। ১০ কর্মদিবসের মধ্যে এ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা না হলে উক্ত জায়গা অবমুক্ত করাসহ কঠোর কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।

এদিকে এর আগে রবিবার (১৪ আগস্ট) বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

এ বিষয়ে উপাচার্য ড. একিউএম মাহবুব বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে আইসিটি পার্ক হওয়ার সিদ্ধান্ত আমরা নিয়েছিলাম। যাতে করে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার সহায়ক হিসেবে পার্কটি ভূমিকা রাখতে পারে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে জায়গার সল্পতার কথা বলা হলে তিনি আরও বলেন, আমরা এই পার্কের জন্য চার (০৪) একর জায়গা নির্ধারণ করেছিলাম। তবে ভবিষ্যতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গা আরও বাড়ানো হবে। আশাকরি তখন জায়গার স্বল্পতা দূর হবে।