বরিশালে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় আটককৃতরা কারাগারে

বরিশাল অফিসঃ ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সা শ্রমিকদের সাথে পুলিশের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় আটককৃত বাসদের বরিশাল জেলা আহ্বায়ক প্রকৌশলী ইমরান হাবিব রুমন এবং সদস্য সচিব ডা. মনিষা চক্রবর্তীসহ ৬ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বরিশালে পুলিশের ওপর হামলা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে শুক্রবার দুপুরে কোতোয়ালি থানা পুলিশ তাদেরকে অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করে। আদালতের বিচারক মারুফ আহম্মেদ গ্রেফতার ৬ জনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এদিকে আদালতে পাঠানোর আগে থানা হাজতে ডা. মনিষা চক্রবর্তী অসুস্থ হয়ে পড়লে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তাকে সদর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের জেনারেল রেজিস্ট্রার অফিসার (জিআরও কোতোয়ালি) এসআই প্রদীপ মিত্র মামলার আরজির বরাত দিয়ে জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীতে বিকল্প ব্যবস্থা না করে ব্যাটারি চালিত রিকশা উচ্ছেদ বন্ধ এবং প্রয়োজনীয় নীতিমালা প্রদান করে ব্যাটারি চালিত রিকশার লাইসেন্স প্রদানের দাবিতে রিকশা শ্রমিকদের বিক্ষোভ মিছিল থেকে পুলিশের ওপর হামলা চালানো হয়। হামলায় মেট্রোপলিটনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি কোতোয়ালি) শাহনাজ পারভীন, কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ্ মো. আওলাদ হোসেন, এসআই নজরুল ইসলাম এবং শারমিন ও ইভাসহ ৪ নারী কনস্টেবলসহ ৭ জন আহত হন।

এসময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাসদের জেলা আহ্বায়ক প্রকৌশলী ইমরান হাবিব রুমন এবং সদস্য সচিব ডা. মনিষা চক্রবর্তী, নাসরিন আক্তার টুম্পা, মিঠুন চক্রবর্তী, নুরুল ইসলাম এবং জাকির হোসেনকে আটক করে। ওই রাতেই আটক হওয়া ৬ জনসহ অজ্ঞাতনামা আরও অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে আসামি করে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন উপ পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম।

তবে আন্দোলনকারীরা জানান, বৃহস্পতিবার পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী বেলা ১১টায় সদর রোড অশ্বিনী কুমার হলে সমাবেশ করে ব্যাটারিচালিত রিকশা শ্রমিক-মালিক সংগ্রাম পরিষদের সদস্যরা। সমাবেশ শেষে রিকশা শ্রমিক-মালিকরা মাটির বাসন হাতে নিয়ে নগরীতে ভুখা মিছিল বের করেন। মিছিল নিয়ে ফজলুল হক এভিনিউতে গেলে পুলিশ বাধা দেয়। বাধা উপেক্ষা করে শান্তিপূর্ণ মিছিল করার চেষ্টা করলে পরে পুলিশ বেধড়ক লাঠিচার্জ করে অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে তাদের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে আন্দোলনকারীরা দাবি করেন। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সংগঠনের উপদেষ্টা জেলা বাসদের সদস্য সচিবসহ ৬ জনকে আটক করেছে।

গ্রেফতারকৃতদের মুক্তি দাবি করেছে সিপিবি ও বাসদের নেতৃবৃন্দ।