প্রবাস ফেরতদের আটক রাখা সরকারের ফ্যাসিবাদী চরিত্রেরই বহিঃপ্রকাশ–টিপু

10

ডেস্ক রিপোর্ট: বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য জননেতা কমরেড আবু হাসান টিপু এক বিবৃতিতে বলেছেন, প্রবাস ফেরতদের ৫৪ ধারায় কারা অন্তরীণ রাখা সরকারের ফ্যাসিবাদী চরিত্রেরই বহিঃপ্রকাশ। সরকার দলীয় এমপি বিদেশে গিয়ে মানবপাচার ও দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেফতার হলেওে সরকারের ভাবমুর্তির ক্ষুন্ন হয়না অথচ ‘দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার সলাপরামর্শ’ করার কাল্পনিক অভিযোগে বৈদেশিক মুদ্রা উপার্জনকারী নিঃস্বার্থ রেমিটেন্স যোদ্ধাদের মাসের পর মাস জেলের মধ্যে আটক রাখা কোন ভাবেই বরদাস্ত করা যায়না।

তিনি বলেছেন, সম্প্রতি ভিয়েতনাম থেকে প্রতারিত হয়ে এবং করোনা ভাইরাস মহামারীর কারণে মধ্যপ্রাচ্য থেকে চাকরি হারিয়ে খালি হাতে দেশে ফিরে আসা ৩৩৮ জনকে অবিশ্বাস্যভাবে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে আটক করে রাখা হয়েছে। এসব প্রবাসীদের বিরুদ্ধে যৌক্তিক অভিযোগ থাকলে সুনির্দিষ্ট মামলা দিয়ে গ্রেফতার দেখানো যেতো কিন্তু তা না করে আগে গ্রেফতার করে তারপর কথিত অপরাধের সন্ধান করা কেবল অযৌক্তিকই নয় অগণতান্ত্রিকও বটে। কোন যুক্তিতেই একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী রেমিটেন্স যোদ্ধাদের সাথে এ ধরনের আচরণ করতে পারেন না।

আবু হাসান টিপু বলেছেন, ভিয়েতনাম ফেরত প্রবাসীরা বৈধভাবে সেখানে যেয়ে প্রতারিত হওয়ায় নিরুপায় হয়েই বাংলাদেশ দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে এর প্রতিকার প্রাথনা করেছিলেন। আর মধ্যপ্রাচ্য কুয়েত, কাতার ও বাহরাইন থেকে দেশে ফেরা ২১৯ জন প্রবাসী সম্পর্কে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীই বলছে, শ্রমবাজারে এসব কর্মী নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ায় সেখানে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা হয়েছিল তবে করোনার কারণে তাদের সাজা মওকুফ করে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয় সংশ্লিষ্ট দেশগুলো। তাই যদি হয় তবে বিদেশের বাজারে যেখানে সাজা মওকুফ হয়েছে, সেখানে দেশে এসে কেন তাদেরকে কোন অপরাধে দ্বিতীয় মেয়াদে সাজা ভোগ করতে হবে?

তিনি বলেছেন, প্রতারণার শিকার প্রবাস ফেরতদের প্রতি সমবেদনা এবং আর্থিক ক্ষতি পূরনের ব্যবস্থা গ্রহন না করে শ্রমবাজারে কর্মীদের নিয়ে গিয়ে যারা প্রতারণা করেছে সরকার তাদেরই পক্ষালম্বন করছেন। এবং অযৌক্তিক ভাবে বিনা অপরাধে প্রবাস ফেরতদের কারাগারে অন্তরীণ রেখেছেন। তিনি অনতিবিলম্বে আটককৃত সকল প্রবাস ফেরতদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবী করেন।