প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গণঅভ্যর্থনা

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ১৪ দলসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা ব্যপক অভ্যর্থনা জানিয়েছেন। হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায় জড়ো হয়েছিল আওয়ামী লীগ, ১৪ সহ শরীক দল এবং এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী ও সমর্থকেরা। নেতা–কর্মীরা বিমানবন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় পর্যন্ত সড়কের দুদিকে কর্মীরা অবস্থান নিয়েছিল।

ধীরগতি ও সড়কের অর্ধেকের বেশি জায়গা দখল করে অভ্যর্থনায় আসা নেতা–কর্মীরা অবস্থান নেওয়ার কারণে ওই সড়কে যান চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। উত্তরা থেকে ঢাকামুখী যানবাহনকে দীর্ঘ যানজটে পড়তে হয়।

প্রধানমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় সাতটা নাগাদ নিউইয়র্ক থেকে ঢাকায় আসছেন। এ জন্য আজ শুক্রবার বেলা দুইটার পর থেকে নেতা–কর্মী ও সমর্থকেরা বিমানবন্দর এলাকায় জড়ো হতে শুরু করেন।

বেলা আড়াইটার দিকে দেখা যায়, বিমানবন্দর এলাকায় জড়ো হওয়া বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী ও সমর্থক ঢোল, তবলাসহ বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্র বাজাচ্ছেন। তাঁরা প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে স্লোগান দিচ্ছেন।

অনেকের হাতে শোভা পাচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি। নেতা-কর্মীরা নানা ধরনের ব্যানার, ফেস্টুন ও রং-বেরঙের প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করছেন। অনেকে ফুল নিয়েও এসেছেন।

নেতা-কর্মীরা বিমানবন্দর থেকে গণভবনের দিকে যাওয়ার সড়কের দুই পাশে দাঁড়িয়ে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যদের তৎপর থাকতে দেখা গেছে।

কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে ১৭ দিনের সফর শেষে আজ সন্ধ্যায় দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী ১৪ সেপ্টেম্বর ঢাকা ত্যাগ করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ব্যাপক অভ্যর্থনার প্রস্তুতি নিয়েছিল আওয়ামী লীগ। বিমানবন্দর থেকে গণভবনে যাওয়ার সময় রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান দলটির নেতা-কর্মীরা।

আওয়ামী লীগের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আওয়ামী লীগসহ কেন্দ্রীয় ১৪ দল, সহযোগী, ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলো, বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন হজরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে খিলক্ষেত, কুড়িল ফ্লাইওভার, হোটেল র‍্যাডিসন, কাকলীর মোড়, বনানী, জাহাঙ্গীর গেট, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, বিজয় সরণি, সামরিক জাদুঘর, জাতীয় সংসদ ভবন মোড় ও গণভবন পর্যন্ত রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে তাঁকে অভ্যর্থনা জানায়।