প্রধানমন্ত্রী ‘বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসে’র উদ্বোধন করেছে

10

ডেস্ক রিপোর্ট : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের বৃহৎ ক্রীড়া আসর ‘বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমসে’র উদ্বোধন করেছেন।
অংশগ্রহণকারী এবং আয়োজকদের অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন, ‘অংশগ্রহণকারী ক্রীড়াবিদরা প্রতিটি ডিসিপ্লিনে যেন সর্বোচ্চ পারদর্শিতা দেখাতে পারেন এবং আগামীতে বিশ্ব অলিম্পিকসে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার পর্যায়ে নিজেদের গড়ে তুলতে পারেন সেজন্য আগামীতে তাঁর সরকার আন্তর্জাতিকমানের প্রশিক্ষণেরও ব্যবস্থা করবে।’ সেভাবেই দেশের খেলোয়াড়দেরকে তিনি তৈরী করতে চান বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু নবম বাংলাদেশ গেমস-২০২০ এর বর্নাঢ্য উদ্বোধনী অন্ষ্ঠুানে সকলকে করোনা সতর্কতা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনেই গেমসে অংশ গ্রহণেরও আহ্বান জানান।
তিনি ভিডিও কনফারেন্সে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের মূল অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে ভার্চুয়ালি ক্রীড়া আসরটির উদ্বোধন করেন।
প্রায় সাড়ে ৫ হাজার অ্যাথলেট ৩১টি ক্রীড়ায় ১২৭১টি পদকের জন্য প্রায় ১০দিন ব্যাপী এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবেন। দেশের ৯টি শহরের ২৯টি ভেন্যুতে এই খেলা অনুষ্ঠিত হবে।
শেখ হাসিনা বলেন, এখন থেকে যে ৩১টি ডিসিপ্লিনে খেলা অনুষ্ঠিত হবে তাতে প্রত্যেকে আপনারা স্বাস্থ্যসুরক্ষাটা একটু মেনেই চলবেন। কারণ, আমি চাইনা আপনারা কেউ কোন কারণে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। যে কারণে, সকলকে বিশেষ করে যারা আয়োজক তাদেরকে আমি বলবো আপনারা এই বিষয়টা বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখবেন যাতে সকলেই স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধি মেনে চলতে পারেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই গেমসটি ২০২০ সালে হওয়ার কথা থাকলেও গতবার হঠাৎ করে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে গেলে বাধ্য হয়ে সেটি বন্ধ রেখে আমরা এবার আয়োজন করছি। যদিও আবার নতুনভাবে করোনা দেখা দেওয়ায় স্বাস্থ্য সুরক্ষার দিকে নজর রেখে এই খেলাগুলো আয়োজনের জন্য প্রধানমন্ত্রী গেমস সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানান।
গেমসের মশাল জাতির পিতার জন্মভূমি টুঙ্গীপাড়া থেকে প্রজ¦লন করায় তিনি বিওএ (বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন) এবং গেমস সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান।