পার্টিতে ভাঙ্গন নয়, সমন্বয় চান রওশন

7

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রতিষ্ঠিত জাতীয় পার্টি তার অবর্তমানে ভাঙ্গনের মুখে পরুক তা চান না তার সহধর্মিণী রওশন এরশাদ। তার ঘনিষ্ঠজন বলে পরিচিত একাধিক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও দলীয় সংসদ সদস্যের সাথে আলাপকালে তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তবে, তারা জানান, জিএম কাদের পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে রওশনের এরশাদের সাথে পরামর্শ গ্রহন করতে হবে।
এ বিষয়ে বিরোধীদলের উপনেতার ঘনিষ্ঠজন বলে পরিচিত পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম এমপি বলেন, আমরা জিএম কাদেরের বিপক্ষে নই। আমরা সবাই রওশন এরশাদ ও জিএম কাদেরসহ সবাইকে নিয়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। ম্যাডামের (রওশন) এ বয়সে চাওয়া-পাওয়ার কিছু নেই। উনি চান সম্মান। জিএম কাদের তার সাথে পরামর্শক্রমে দল পরিচালনা করবেন এটাই ম্যাডামসহ সকলের প্রত্যাশা।
জানা যায়, “জিএম কাদের পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান, চেয়ারম্যান নন।” এই মর্মে গত ২২ জুলাই গভীর রাতে প্রয়াত এরশাদের সহধর্মিণী রওশন এরশাদসহ পার্টির দশজন প্রেসিডিয়াম ও এমপির নামে একটি বিবৃতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। সুত্র জানায়, সেই বিবৃতিও দেয়ার পক্ষে ছিলেন না রওশন এরশাদ। পার্টির দুই-একজন অতি উৎসাহী প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশনকে অনেকটা ভূল বুঝিয়ে ও কাকুতি-মিনতি করে এ বিবৃতিতে স্বাক্ষর করান। উক্ত বিবৃতিতে নাম থাকা নয়জনের মধ্যে ছয়জনই জানান, এমন কোনো বিবৃতিতে আমরা স্বাক্ষর করিনি। তবে তারা বলেন, রওশন এরশাদ ও জিএম কাদেরের সমন্বয়েই দল পরিচালিত হোক। এ ক্ষেত্রে জিএম কাদের পার্টির চেয়ারম্যান ও রওশন এরশাদ সংসদে বিরোধীদলের ভূমিকা পালন করবেন। এ বিষয়ে পার্টর প্রেসিডিয়াম সদস্য হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন বলেন, রওশন এরশাদ পার্টির সর্বজন স্বীকৃত শ্রদ্ধেয় ব্যাক্তি। কিন্তু সারাদেশে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য যে বয়সের প্রয়োজন, সেই বয়স এখন তার নেই। জনতার বন্ধু জিএম কাদের একজন উচ্চ শিক্ষিত, দুর্নীতিমুক্ত ও বিনয়ী এবং সর্বমহলে তার একটি উজ্জল ভাবমূর্তি রয়েছে। তিনি হচ্ছেন জাপা নেতাকর্মীদের স্বপ্নের রাজনৈতিক নেতা, তার ও রওশনের নেতৃত্বে পার্টি ঐক্যবদ্ধ।
পার্টির অপর প্রেসিডিয়াম সদস্য এটিইউ তাজ রহমান বলেন, জিএম কাদের ও রওশন এরশাদের নেতৃত্ব যদি দল পরিচালিত হয়, তাহলে আগামীদিনে জাতীয় পার্টি সুসংগঠিত ও শক্তিশালী দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে। দেশের তৃণমূল নেতাকর্মীরাও চান রওশন এরশাদ ও জিএম কাদেরের সমন্বয়ে পার্টি পরিচালিত হোক। তবেই আমরা পল্লীবন্ধু এরশাদের অসমাপ্ত স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারবো।
প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী মামুনুর রশিদ বলেন, আমরা মনে করি, মৃত্যুর আগে পল্লীবন্ধু এরশাদ পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে যে সিদ্ধান্ত দিয়ে গেছেন সে বিষয়ে পার্টির নেতাকর্মী ও দেশবাসী সকালে শ্রদ্ধাশীল। এ সিদ্ধান্ত বলাবত থাকলে এরশাদের আত্মাও শান্তি পাবে। পাশাপাশি আমাদের পল্লীমাতা রওশন এরশাদকেও যথাযথ সম্মান দিতে হবে। উভয়ের নেতৃত্বে দল আরো গতিশীল হবে। জিএম কাদের ইতিমধ্যে যেভাবে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন আশাকরি অচিরেই তৃণমূল আরো জাগ্রত হবে।
পার্টির যুগ্ম-মহাসচিব হাসিবুল ইসলাম জয় এ বিষয়ে বলেন, মাননীয় চেয়ারম্যান জিএম কাদেরকে মনে রাখতে হবে তার দলের বাইরেও সর্বমহলে স্বচ্ছ একটি অবস্থান রয়েছে। পরিবারের সকলেরই নেতা তিনি। সকলের কাছে তার গ্রহণযোগ্যতা তাকেই ধরে রাখতে হবে। সকলের শ্রদ্ধেয় রওশন এরশাদকেও সম্মানিত করতে হবে। রওশন এরশাদ দল ও দলের বাইরেও জাতির কাছে সম্মানিত পল্লীমাতা হিসেবেই থাকবেন। তবে, সেক্ষেত্রে তার অবস্থান তাকেই পরিস্কার করতে হবে।
সার্বিক বিষয়ে পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেন, আমি আগেও বলেছি ভাবির( রওশন) সাথে আমার কোনো বিরোধ নেই। উনি আমাকে ছোটবেলা থেকে সন্তানের মত লালন পালন করেছেন। উনি আমার মাথার উপর বটগাছের ছায়ার মত থাকবেন। উনি যেভাবে আমাকে দিক-নির্দেশনা দিবেন পার্টি ঠিক সেভাবেই পরিচালিত হবে।