পাকিস্তানের কাছে ৮ উইকেটে হারলো বাংলাদেশ

চট্টগ্রাম অফিস : দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে পাকিস্তানের কাছে ৮ উইকেটে হারলো স্বাগতিক বাংলাদেশ। এই জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল পাকিস্তান।জয়ের জন্য বাংলাদেশের ছুঁড়ে দেয়া ২০২ রানের সহজ টার্গেটে খেলতে নেমে আজ পঞ্চম ও শেষ দিনের প্রথম সেশনেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পাাকিস্তান। ২ উইকেটে ২০৩ রান করে পাকিস্তান।
চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিন শেষেই ম্যাচ জয়ের পথ তৈরী করে রেখেছিলো পাকিস্তান। চতুর্থ দিন শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ছিল বিনা উইকেটে ১০৯ রান। ম্যাচ জিততে পঞ্চম ও শেষ দিনে ১০ উইকেট হাতে নিয়ে পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ৯৩ রান । অন্য দিকে ম্যাচ জিততে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিলো পাকিস্তানের ১০ উইকেট শিকার করা। তবে এ জন্য শেষ দিন বল হাতে অসম্ভবকে সম্ভব করতে হতো টাইগারদের।
চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে পঞ্চম দিনেও শুরু থেকেই বাংলাদেশ বোলারদের উপর আধিপত্য বিস্তার করে খেলতে থাকে পাকিস্তানের দুই ওপেনার আবিদ আলি ও আব্দুল্লাহ শফিক। আবিদ ৫৬ ও শফিক ৫৩ রান নিয়ে দিনের খেলা শুরু করেন।
তাইজুল ইসলামের করা ৩৯তম ওভারের শেষ তিন বলে তিনটি বাউন্ডারি আদায় করে নেন আবিদ। ৪৩তম ওভারে বাংলাদেশকে এই ইনিংসের প্রথম সাফল্য এনে দেন স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ। লেগ বিফোর আউট হন অভিষেক টেস্ট খেলতে নামা শফিক। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি তিনি। ৮টি চার ও ১টি ছক্কায় ১২৯ বলে ৭৩ রান করেন শফিক। এতে দলীয় ১৫১ রানে প্রথম উইকেট হারায় পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসে উদ্বোধনী জুটিতে ১৪৬ রান করেছিলেন আবিদ-শফিক।
প্রথম ইনিংসে ১৩৩ রান করা আবিদ আরও একটি সেঞ্চুরির পথেই হাটছিলেন। কিন্তু ব্যক্তিগত ৯১ রানে আবিদকে থামান প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে ৭ উইকেট নেয়া তাইজুল। লেগ বিফোর আউটের পর রিভিউ নিয়েও বাঁচতে
তখন জয় থেকে ৩১ রান দূরে থাকতে ইউট হন আবিদ। এরপর বাকী কাজটুকু অনায়াসে সেড়ে ফেলেন আজহার আলি ও অধিনায়ক বাবর আজম। ৫৯তম ওভারে পাকিস্তানের জয় নিশ্চিত করেন আজহার-বাবর। আজ ৯৩ রানের প্রয়োজন মেটাতে ১৫৩ বল খরচ করে পাকিস্তান।
আজহার ২৪ ও বাবর ১৩ রানে অপরাজিত ছিলেন। বাংলাদেশের তাইজুল-মিরাজ ১টি করে উইকেট নেন।
প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল ৩৩০ রান। জবাবে পাকিস্তানের সংগ্রহ ছিল ২৮৬ রান। প্রথম ইনিংস থেকে ৪৪ রানের লিড পাওয়া বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংসে ১৫৭ রানে অলআউট হয় ।
ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে ১৩৩ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৯১ রান করায় ম্যাচ সেরা হন পাকিস্তানের আবিদ।
আগামী ৪ ডিসেম্বর থেকে ঢাকায় শুরু হবে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট।