পঞ্চগড়ে আটোয়ারীতে সরস্বতী পূজা উপলক্ষে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান

7

পঞ্চগড় থেকে নিতিশ চন্দ্র বর্মন নিরব : মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১) হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব শ্রীশ্রী সরস্বতী পূজা। সনাতন ধর্মীয় বিশ্বাস অনুযায়ী জ্ঞান ও বিদ্যার অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতী ভক্তদের মানবীয় চেতনায় উদ্দীপ্ত করতে প্রতিবছর ধরাধামে আবির্ভূত হন।

বিদ্যা ও ললিতকলার অধিষ্ঠাত্রী দেবী সরস্বতীর আরাধনা করবে মর্ত্যরে ভক্তকুল। ঢাক-ঢোল-কাঁসর-শঙ্খ ও উলুধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ইঠেছে বিভিন্ন জেলা উপজেলার পূজামণ্ডপ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার রঘুনাথপুর সরকারি বিদ্যালয় মাঠে বাবু বিশ্বনাথের সভাপত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু তাহের মোঃ সামসুজ্জামান।

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন: রাধানগর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবু জাহেদ ও বাবু গণেষ চন্দ্র ঘোষ ভানু বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক, বাবু উতম কুমার সেন সভাপতি রঘুনাথপুর সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয় বাবু নিতিশ চন্দ্র বর্মন (সাংবাদিক), অত্র বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো: তারেক হোসেন চৌধুরী মুক্তা সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বক্তব্য দেন

এই সময় ব্যক্তারা বলেন, শাস্ত্রমতে, প্রতিবছর মাঘ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে শ্বেতশুভ্রা কল্যাণময়ী বিদ্যাদেবী সরস্বতীর আরাধনা করা হয়। শ্বেতশুভ্র বসনা সরস্বতী দেবীর এক হাতে বেদ, অন্য হাতে (পাণি) বীণা থাকে।

এ জন্য তাকে বীণাপাণিও বলা হয়। তাকে ঐশ্বর্যদায়িনী, বুদ্ধিদায়িনী, জ্ঞানদায়িনী, সিদ্ধিদায়িনী, মোক্ষদায়িনী এবং শক্তির আধার হিসাবে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা আরাধনা করেন।

উল্লেখ্য যে, ২০২০ ইং সালে উত্তির্ণ জেএসসি ও পিএসসি শিক্ষার্থীদের মাঝে একটি করে গোলাপ ফুল, কলম ও ডিকশনারি বই ভালো ফলাফল করার জন্য প্রধান অতিথির হাতদিয়ে প্রদান করা হয়।