“নানা বিজ্ঞাপনে ঢাকা বশেমুরবিপ্রবির গেট!”

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি: নানা বিজ্ঞাপনী ব্যানারে ভরে গেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেইন গেট। একইসাথে এতে করে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা অবস্থায় পরে আছে জাতির পিতার নামাঙ্কিত বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র নামফলক।

গত বছরের মার্চ মাস হতে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেইন গেটের কাজ চলমান থাকায়, ক্যাফেটেরিয়া সংলগ্ন গেটটি অস্থায়ী মেইন গেট হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। তবে বর্তমানে বিভিন্ন কোচিং, টিউশনি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ভাড়া ও পণ্যের প্রচারণায় গেটটির মূল কাঠামো সহ ঢাকা পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নামাঙ্কিত একমাত্র নামফলক (সাইনবোর্ড)।

এদিকে নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার প্রায় এক বছর পার হতে চললেও নানা জটিলতায় মেইন গেটের কাজ এক প্রকারের বন্ধ অবস্থায় পড়ে আছে। এতে করে বিভিন্ন সময় নানা ধরনের বিড়ম্বনায় স্বীকার হতে হচ্ছে৷ এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা গেটের নকশা ত্রুটির সমস্যা দেখিয়ে দিয়ে নির্মাণ কাজ সাময়িক স্থগিত রয়েছে বলে জানান।

প্রতিষ্ঠার দুই দশক পার হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম খচিত কোন স্থায়ী ফলক না থাকায় আক্ষেপ প্রকাশ করছেন শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে নানা বিজ্ঞাপনের ছড়াছড়িতে নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের নামাঙ্কিত নামফলক চাপা পড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তারা ৷ এসময় শিক্ষার্থীরা এসব অপ্রয়োজনীয় বিজ্ঞাপনী ব্যানার উচ্ছেদ করে নামফলক দৃশ্যমান করবার দাবি জানান।

এ বিষয়ে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী তারিকুল ইসলাম রিয়াদ বলেন, একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাহ্যিক সৌন্দর্য পড়াশোনায় ব্যাপক প্রভাব ফেলে। দুঃখজনক হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান অস্থায়ী মেইন গেট দিয়ে প্রবেশের সময়ে বিচ্ছিন্ন পোস্টার, ব্যানার দেখতে হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের দেয়ালে বিভিন্ন বিজ্ঞাপনের পোস্টার অত্যন্ত হতাশাজনক।

অপরদিকে শিক্ষার্থী সাইম রাইয়ান তার ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জাতির জনকের নামাঙ্কিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণে ম্যুরাল কিংবা তাঁর কোন স্মৃতিস্তম্ভ নেই৷ চোখে পড়বার মত একমাত্র অস্থায়ী গেটের সামনে নামে মাত্র একটা নামফলক আছে৷ যা কিনা আমাদের জন্য দুঃখজনক। সেটাও যদি বিজ্ঞাপনের ব্যানারে ঢেকে যায় তা হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য লজ্জাজনক ব্যাপার। এছাড়া বিষয়টি নতুন বর্ষের শিক্ষার্থীদের সামনে নিজেদের সম্মানহানীর কারণ হবে৷ এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দৃঢ় পদক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।

এদিকে এ বিষয়ে জানতে চাইলে রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ মোরাদ হোসেন জানান, বিষয়টি সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অবগত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক(গেট) সংলগ্ন এত বিজ্ঞাপন আসলেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য নষ্ট করে। বিষয়টি আসলেই আপত্তিকর। একইসাথে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সকলের সাথে আলোচনা করে এ বিষয়ে অতিদ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আরও জানান।