দৈনিক ২০ লাখ ব্যারেল তেল কম উৎপাদন করবে ওপেক

ডেস্ক রিপোর্ট: অপরিশোধিত তেল উৎপাদন কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে পেট্রোলিয়াম রফতানিকারক দেশগুলোর জোট ওপেক। বিশ্ব বাজারে তেলের দাম কমে যাওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বুধবার ভিয়েনায় ওপেকভুক্ত দেশগুলোর বৈঠক হয়। এই বৈঠকে দৈনিক ২০ লাখ ব্যারেল তেলের উৎপাদন কমানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

২০২০ সালে করোনা মহামারীর পর থেকে অপরিশোধিত তেলের উৎপাদন সবচেয়ে বেশি মাত্রায় কমানোর সিদ্ধান্ত হয়। তেলের উৎপাদন না কমাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য দেশগুলোর চাপ সত্ত্বেও জোটটি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা, ক্রমবর্ধমান মার্কিন সুদের হার এবং ডলারের দাম বেড়ে যাওয়ায় তিন মাস আগে তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ১২০ ডলার থেকে কমে ৯০ ডলারে নেমে আসে।

ওপেকের এই সিদ্ধান্তের প্রভাব ভোক্তা পর্যায়ে পড়তে তিন সপ্তাহ লাগতে পারে। ওপেকের এই সিদ্ধান্তের পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার মজুদ থেকে তেল সরবরাহ শুরু করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হোয়াইট হাউস জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ওপেকের তেল কম উৎপদানের অদূরদর্শী সিদ্ধানে হতাশা প্রকশ করেছেন। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন ইউক্রেনে আক্রমণ করার কারণে বিশ্ব অর্থনীতি ক্রমাগত নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা বলেছেন, ওয়াশিংটন তেলের দাম কমাতে চাওয়ার একটি কারণ হল মস্কোকে তেলের রাজস্ব থেকে বঞ্চিত করা। প্রেসিডেন্ট বাইডেন এই বছর রিয়াদ সফর করেছেন কিন্তু জ্বালানির বিষয়ে কোনো দৃঢ় সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি আদায় করতে ব্যর্থ হয়েছেন।

ওপেকের বর্তমান সদস্য দেশ ১৩টি। এই দেশগুলোর মধ্যে আছে অ্যাঙ্গোলা, আলজেরিয়া, ইরাক, ইরান, ইউএই, কুয়েত, নাইজেরিয়া, ভেনিজুয়েলা, লিবিয়া, সৌদি আরব, গ্যাবন ও ইকুয়েটোরিয়াল গিনি। অবশ্য ইন্দোনেশিয়া ২০০৮ সালে ওপেক থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে ।
আমাদের সময়. কম