দেশকে সংবিধানের বাইরে ফেলে দেয়ার রাজনীতি রুখে দিতে হবে: ইনু

শহীদ ডা. মিলন দিবস উপলক্ষ্যে জাসদের আলোচনা সভা

স্টাফ রিপোটার: ৯০ এর গণঅভ্যূত্থানের শহীদ জাসদ নেতা ডা. শামসুল আলম খান মিলন স্মরনে জাসদ আয়োজিত আলোচনায় ভাষণদানকালে জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি বলেছেন, বিএনপির ক্ষমতা পুনর্দখলের আন্দোলন দেশকে সংবিধানের বাইরে ফেলে দিয়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ করা এবং জঙ্গিবাদীদের রাজনীতির মাঠে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করার পথে এগুচ্ছে। তিনি বলেন, অসাংবিধানিক সরকার আনার অপরাজনীতি রুখে দিয়ে যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানই দেশের সাংবিধানকি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক ধারার প্রধান কর্তব্য। জনাব ইনু শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলনের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলনের আত্মবলিদানের চেতনাকে ধারণ করে দেশে অসাংবিধানিক সরকার আনার অপরাজনীতি রুখে দেয়ার জন্য জাসদ সহ ১৪ দলের নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান। জনাব ইনু বলেন, ১৪ দলকে সক্রিয় করা এবং রাজপথে ঐক্যবদ্ধ শক্তির সমাবেশ ঘটানোর জন্য ১৪ দলের শরিকদের মধ্য থেকে বড় দলের অহমিকা ও ছোট দলের হীনমন্যতা ঝেড়ে ফেলতে হবে। জনাব ইনু বলেন, বৈশ্বিক সংকটের ঘুর্ণিঝড়ে গোটা পৃথিবীর মত বাংলাদেশের অর্থনীতিতেও যে সংকট তৈরি করছে তা মোকাবেলা করার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে দুর্নীতিবাজ-লুটেরা গোষ্ঠী এবং বাজার সিন্ডিকেটকে শক্ত হাতে দমন করতে হবে।

জনাব ইনু ৯০ এর গণঅভ্যূত্থানের শহীদ জাসদ নেতা ডা. শামসুল আলম খান মিলনের আত্মবলিদান দিবস উপলক্ষে জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে আজ ২৬ নভেম্বর শনিবার বিকাল ৪ টায় নগরীর শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির ভাষণে এ বক্তব্য রাখেন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, সহ-সভাপতি মীর হোসাইন আখতার, বীরমুক্তিযোদ্ধা শফি উদ্দিন মোল্লা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান রোকন, নইমুল আহসান জুয়েল, মোঃ মোহসীন, ওবায়দুর রহমান চুন্নু, জাতীয় শ্রমিক জোট-বাংলাদেশ এর সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা সাইফুজ্জামান বাদশা, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জাসদের সভাপতি ইদ্রিস ব্যাপারী, ঢাকা মহানগর পশ্চিম জাসদের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বাবুল, জাসদের দফতর সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, জাতীয় যুব জোটের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল কবির স্বপন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (ন-মা) কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি রাশিদুল হক ননী প্রমূখ।

জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার তার ভাষণে বলেন, শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলন স্কুল জীবন থেকেই সমাজতন্ত্রের দীক্ষা নিয়ে সমাজ বদল ও গণতান্ত্রিক প্রগতিশীল আন্দোলনে সামনের কাতারে থেকে ভূমিকা রেখেছেন। সমাজতন্ত্রের আদর্শের শক্তিতে বলিয়ান হয়েই ডা. মিলন আত্মবলিদানের পথে এগিয়ে যাওয়ার দুঃসাহসিকতা অর্জন করেছিলেন।

সভার শুরুতে শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলনে প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

শহীদ ডা. মিলন দিবসে জাসদের অন্যান্য কর্মসূচি
শহীদ ডা. মিলন দিবস উপলক্ষ্যে জাসদের অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আগামীকাল ২৭ নভেম্বর রবিবার ভোর ৬ টায় দলীয় কার্যালয়ে দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ, সকাল ৮ টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজস্থ শহীদ ডা. মিলনের সমাধি ও সকাল ৮:৩০ টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় টিএসসি সংলগ্ন শহীদ ডা. মিলন সৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বিএমএ-সহ বিভিন্ন চিকিৎসক সংগঠন আয়োজিত আলোচনা সভায় যোগদান।