ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় একমাত্র আসামীর যাবজ্জীবন

4

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ মামলায় একমাত্র অভিযুক্ত মজনুকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭-এর বিচারক বেগম মোসা. কামরুন্নাহার আলোচিত এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

সংশ্লিষ্ট আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর আফরোজা ফারহানা আহমেদ (অরেঞ্জ) বলেন, এটি একটি আলোচিত মামলা। অনেকটা দ্রুততম সময়ের মধ্যে মামলাটির বিচার শেষ করতে পেরেছি। মজনু ঔদ্ধত্য টাইপের লোক। তাকে নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়োগ করতে হয়েছে। তারপরও সে উলটোপালটা কথা বলেছে আদালতে। সে সাক্ষী এমনকি আমাকেও খুন করার হুমকি দিয়েছে। তিনি বলেন, সদিচ্ছা থাকলে দ্রুততম সময়ের মধ্যে মামলার বিচার শেষ করা যায়।
সরকার থেকে নিয়োগপ্রাপ্ত মজনুর আইনজীবী রবিউল ইসলাম রবি বলেন, মামলায় ২৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ২০ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়। সাক্ষীদের সাক্ষ্য জেরায় মজনুর বিরুদ্ধে ধর্ষণ নির্দিষ্টভাবে প্রমাণিত হয়নি।

উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারি কুর্মিটোলায় ঐ ছাত্রীকে ধর্ষণ করে মজনু। ঐ ঘটনায় ছাত্রীর অধ্যক্ষ বাবা বাদী হয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। গত ৮ জানুয়ারি ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন শেওড়া বাসস্ট্যান্ড থেকে র‌্যাব মজনুকে গ্রেফতার করে। পরে মজনু দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন।