ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নির্বাচিত

5

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী (নৌকা) কাজী মনিরুল ইসলাম ও নওগাঁ-৬ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী (নৌকা) আনোয়ার হোসেন (হেলাল) নির্বাচিত হয়েছেন। আজ রাতে ঢাকার আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

৪৫ হাজার ৬৪২ ভোট পেয়ে মনিরুল ইসলাম নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিএনপির সালাহ উদ্দিন আহমেদ (ধানের শীষ) পেয়েছেন ২ হাজার ৯২৬ ভোট।

নির্বাচনে জাতীয় পার্টির মীর আব্দুস সবুর (লাঙ্গল) ৪১৩, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. আরিফুর রহমান-সুমন মাস্টার (আম) ১১১ ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আনছার রহমান শিকদার (ডাব) ৪৯ ভোট পেয়েছেন।এই আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে) ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৪৮, ৪৯, ৫০, ৬০, ৬১, ৬২, ৬৪, ৬৫, ৬৬, ৬৭, ৬৮, ৬৯ ও ৭০ নম্বর ওয়ার্ড (ডেমরা ও মতিঝিল) নিয়ে ঢাকা-৫ আসন গঠিত।
এই আসনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ১৪টি ওয়ার্ডে মোট ১৮৭টি কেন্দ্রের ৮৬৪টি কক্ষে ভোটগ্রহণ হয়। এখানে মোট ভোটার ৪ লাখ ৭১ হাজার ১২৯ জন।

এদিকে বিএনপি প্রার্থী সালাহ উদ্দিন আহমেদ আজ রাতে এক সংবাদ সম্মেলন করে অনিয়মের অভিযোগ তুলে পুনঃনির্বাচনের দাবি করেছেন।

আমাদের রাজশাহী অফিস জানান, নওগাঁ-৬ আসনে আওয়ামী লীগের আনোয়ার হোসেন হেলাল নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন এক লাখ পাঁচ হাজার ৬৬৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির শেখ রেজাউল ইসলাম পেয়েছেন চার হাজার ৬০৫ ভোট। ভোটার উপস্থিতি ছিল প্রায় ৩৫ ভাগ।

এই আসনে আরও একজন প্রার্থী ছিলেন ন্যাশনাল পিপলস পার্টির খন্দকার ইন্তেখাব আলম। এ আসনে ভোটার সংখ্যা ছিল তিন লাখ ছয় হাজার ৭২৫ জন।

ভোট চলাকালে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে কেন্দ্র দখলসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে বিএনপি প্রার্থী নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন। রোববার অর্ধদিবস হরতালেরও ডাক দেন তিনি।

গত ৩ সেপ্টেম্বর এ দুটি আসনে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছিল। গত ৬ মে আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লার মৃত্যুতে ঢাকা-৫ আসন এবং গত ২৭ জুলাই এমপি ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে নওগাঁ-৬ আসন শূন্য হয়।