ঢাকার নতুন কারাগারে বন্দি স্থানান্তরের বিশ্বরেকর্ড বাংলাদেশে

যুগবার্তা ডডেস্কঃ ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার আনুষ্ঠানিকভাবে কেরানীগঞ্জের রাজেন্দ্রপুরে স্থানান্তরিত হয়েছে। এক সঙ্গে এতো বন্দি স্থানান্তর একটি বিশ্বরেকর্ড হতে চলেছে। এই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারটি পরিত্যক্ত হবে। দুইশ’ বছরের পুরনো এই কারাগারটি একটি পার্কে রূপান্তর করা হবে। শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়। ৬ হাজার ৪০০ বন্দীকে ওই কারাগারে স্থানান্তর করা হচ্ছে। কর্তৃপক্ষ আশা করছে, শুক্রবার দিনের আলো থাকতে থাকতেই সব বন্দীকে নতুন ঠিকানায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব হতে পারে। বিশ্বে কোথাও এতো বন্দি একদিনে নতুন ঠিকানায় স্থানান্তরের ঘটনা আগে ঘটেনি। বর্তমানে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জায়গায় তৈরি হবে পার্ক। থাকবে জাতীয় চার নেতার স্মৃতিসৌধ এবং মিউজিয়াম। বহুতল ভবন তৈরি করার জন্য একটি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। সেখানে বিপণিবিতান, সিনেপ্লেক্স, সুইমিংপুলসহ থাকবে সব ধরনের নাগরিক সুবিধা। এ ছাড়া কারাগারে অপরাধীদের সংশোধনের জন্য রয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার শেখ মারুফ হাসান শুক্রবার ২৯ জুলাই সকালে সাংবাদিকদের বলেন, ডিএমপির নেতৃত্বে এই বন্দী স্থানান্তরের কাজ চলছে। বন্দী স্থানান্তর শুরুর আগেই নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। গোয়েন্দা প্রতিবেদনের আলোকে নিরাপত্তা-ব্যবস্থা সাজানো হয়েছে। নিরাপত্তার কাজে ডিবি, এপিবিএন, র‍্যাব ও বিজিবি সহায়তা করছে। মারুফ হাসান বলেন, ‘এত সংখ্যক বন্দীকে একযোগে স্থানান্তর করার ঘটনাটি ঐতিহাসিক। কোনোভাবে যাতে নিরাপত্তা বিঘ্নিত না হয়, এ জন্য কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছি।’ ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জ্যেষ্ঠ কারা তত্ত্বাবধায়ক মো. জাহাঙ্গীর কবির জানান, কারাগারের দাপ্তরিক আসবাব আগেই কেরানীগঞ্জে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কারাগার সূত্র জানায়, নাজিমউদ্দিন রোডের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী থাকা নারী ও দুর্র্ধষ জঙ্গিদের আগেই গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। স্থানান্তরের প্রক্রিয়া শেষ হলে কাশিমপুর কারাগার থেকে তাঁদের কেরানীগঞ্জের কারাগারে নিয়ে যাওয়া হবে। নাজিমউদ্দিন রোডের ১৭ একর জমিতে ১৭৮৮ সালে গড়ে ওঠা পুরোনো কারাগার ভবনটিতে বন্দী ধারণক্ষমতা ২ হাজার ৮২৬ জন। স্থানান্তরের আগে সেখানে ৬ হাজারের বেশি বন্দী ছিলেন। কেরানীগঞ্জের নতুন কারাগার ভবন দাঁড়িয়ে আছে ১৯৪ একরের বেশি জমির ওপর। ধারণক্ষমতা ৫ হাজার হলেও ৮ হাজারের মতো বন্দী থাকতে পারবেন। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারসহ সারা দেশের ৬৮টি কারাগারে মোট ধারণক্ষমতা ৩৪ হাজার ৭৯৬ জন। অথচ কারাগারগুলোতে বর্তমানে বন্দি আছেন ৭১ হাজার ১০৫ জন। এ অবস্থায় কয়েক গুণ বেশি ধারণক্ষমতাসম্পন্ন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার স্থানান্তর হয়েছে রাজধানীর অদূরে কেরানীগঞ্জে।