চাঁদপুরের গ্রাম আদালতে মার্চ মাসে ২৫১ মামলা

সংবাদদাতাঃ চাঁদপুরের গ্রাম আদালতে মার্চ মাসে ২৫১ মামলা দায়ের ও ১২ লক্ষ ৭২ হাজার ৫শ টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় হয়েছে।

চাঁদপুরে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণের কাজ ২০১৭ সাল হতে চলছে। তবে গ্রাম আদালতে মামলা গ্রহণ এবং নিস্পত্তির কাজ শুরু হয় ঐ বছর জুলাই মাস হতে। এ পর্যন্ত মোট ৩,৩২৬ মামলা গ্রাম আদালতে নথিভূক্ত হয়েছে এবং এরমধ্যে ৩,১৫৯ মামলা নিস্পত্তি হয়েছে। এখানে মামলা নিস্পত্তির হার শতকরা ৯৫ ভাগ। বর্তমানে ১৬৭টি মামলা জেলার প্রকল্পাধীন মোট ৪৪টি গ্রাম আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। ২০১৭ সালের জুলাই হতে ২০১৯ সালের মার্চ পর্যন্ত প্রতি মাসে প্রতি ইউনিয়নে গড়ে ৩.৬০ টি মামলা দায়ের হয়েছে যা মোটেও আশানুরূপ ছিল না।

কিন্তু আনন্দের বিষয় হল যে, চলতি বছরের মার্চ মাসে জেলায় ৪৪টি ইউনিয়নের গ্রাম আদালতে মোট ২৫১ মামলা দায়ের হয়েছে। এ হিসেবে প্রতি ইউনিয়নে গড়ে ৫.৭০ টি মামলা দায়ের হয়। এ অগ্রগতির পিছনে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের সহায়তা দারুনভাবে কাজ করেছে। এছাড়াও চাঁদপুর সহ দেশের বিভিন্ন মিডিয়া গ্রাম আদালতের প্রচার-প্রসারে এবং এ অগ্রগতিতে ভূমিকা পালন করেছে।

গ্রাম আদালত সর্বোচ্চ ৭৫ হাজার টাকা মূল্যমানের দেওয়ানী ও ফৌজদারী সংক্রান্ত মামলা নিস্পত্তি করে থাকে। এ আদালতে ফৌজদারী মামলার ফি ১০ টাকা ও দেওয়ানী মামলার ফি ২০ টাকা মাত্র। এর বাইরে এখানে আর কোন খরচ নেই। এই আদালতে পক্ষগণ নিজের কথা নিজেই বলতে পারেন। এখানে কোন আইনজীবীর দরকার হয় না। গ্রাম আদালতের বিচারিক প্যানেল মোট ৫ সদস্য নিয়ে গঠিত হয় যেখানে অন্ততঃপক্ষে একজন নারী সদস্য থাকেন। গ্রাম আদালত নারী-পুরুষ সবার জন্য নিরাপদ ও ভয়মুক্ত। সাধারণ জনগণের বিচার ব্যবস্থায় প্রবেশাধীকার নিশ্চিতকরণে গ্রাম আদালত প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদে কাজ করছে। তাই, এর প্রচার প্রসারে আমাদের সবার ভূমিকা রাখা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে দেশের বিভিন্ন মিডিয়া অগ্রগণ্য ভূমিকা রাখছে।।