চলনবিলের জিলাপী কারিগর নজরুলের জীবন পাল্টে গেছে জিলাপী ব্যাবসায়

এম এইচ নাহিদঃ কর্ম আর পরিশ্রম মনোযোগের সাথে করলে জীবন পাল্টে যায় চলনবিলের জিলাপী কারিগর নজরুল তার বড় প্রমাণ। অনাহার, অর্ধাহার যার নিত্যদিনের সঙ্গী ছিল, প্রতিদিন যাকে পাওয়ানাদারের ভয়ে পালিয়ে থাকতে হতো, সেই নজরুল আজ অনেক সুখী। ভাঙ্গা বেড়ার ঘর থেকে হয়েছে ইটের পাকা বাড়ি। মাঠের মধ্যে আছে পরিশ্রমে কেনা কয়েক বিঘা জমি। চলন বিলে নজরুল এখন পরিচিত জিলাপী নজরুল হিসেবে।
২০ বছরের সাধনায় স্ব-উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এই জিলাপী কারিগরের বাড়ি ঐতিহ্যবাহী চলনবিলের সিংড়া উপজেলার আয়েশ গ্রামে। পুরো নাম নজরুল ইসলাম আকন্দ। প্রতিদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত স্ত্রী কন্যাকে নিয়ে জিলাপী তৈরী করে। বিকালে হাটে -বাজারে বিক্রী করে ফিরে গভীর রাতে।পরের দিন আবার সেই ময়দা মাখিয়ে গুড়-চিনি দিয়ে জিলাপী তৈরীর কাজ। এলাকার বিবাহ, মিলাদ, যে কোন অনুষ্ঠানে নজরুলের জিলাপী থাকতেই হবে। এলাকার সবাই তাকে চিনে জিলাপীর কারিগর হিসেবে।
জিলাপী ভাজতে ভাজতে নজরুল যুগবার্তাকে জানায়-এক সময় তার সংসার চলতো না। ঋৃণের দায়ে হাঁটতে পারতনা। এই ব্যবসা করে সে দুই মেয়ে কে বিয়ে দিয়েছে। ইট দিয়ে বাড়ি পাকা করেছে।কয়েক বিঘা জমিও কিনেছে। সংসারে এখন আর কোন অভাব নাই।