গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবি

যুগবার্তা ডেস্কঃ ১ জুন থেকে কার্যকর হতে যাওয়া গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবি করেছে সিপিবি-বাসদ।
বুধবার বিকেলে প্রেসক্লাবের সামনে গ্যাসের বর্ধিত মূল্য অবিলম্বে প্রত্যাহার এবং আবাসিক এলাকায় স্বাভাবিক গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করার দাবিতে সিপিবি-বাসদ ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, গত ফেব্রুয়ারি মাসে BERC হঠাৎ করে জনগণের উপর দু’দফায় গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের বোঝা চাপিয়ে দেয়, কোন যৌক্তিক কারণ ছাড়া গণশুনানীর মতামতের তোয়াক্কা না করে তারা এ সিদ্ধান্ত নেন। তখনই জনগণ এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় অর্ধদিবস হরতাল পালন করেন।
রমজান মাস দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতে জনজীবনে নাভিশ্বাস তার উপর একদিন আগে BERC সিদ্ধান্তের পক্ষে হাইকোর্টের মতামত নিয়ে জনগণকে এরা ভয়াবহ পরিস্থিতির সম্মুখীন করেছে।
সিপিবি ঢাকা কমিটির সভাপতি কমরেড মোসলেহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে এ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাসদ নেতা কমরেড বজলুর রশীদ ফিরোজ, সিপিবি ঢাকা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডা. সাজেদুল হক রুবেল, সমাবেশ পরিচালনা করেন বাসদ নেতা জুলফিকার আলী।
বক্তারা বলেন সরকারের নির্দেশে ইঊজঈ যৌক্তিকভাবে এ দাম বৃদ্ধি করেছে সরকার গ্যাস খাত থেকে ভ্যাট, লভ্যাংশ ও আগাম কর্পোরেট ট্যাক্স হিসেবে ৬০% অর্থ নিয়ে তা কমিয়ে দিলে BERC বাধ্য হবে গ্যাসের দাম কমাতে।
বর্তমান সময়ে ৯২ ঘনমিটার গ্যাস সরবরাহের হিসাব ধরে দু চুলার দাম নির্ধারণ করা হয়েছে কিন্তু বাস্তবে ঢাকা শহরের ৮০% মানুষ ৪৫ ঘনমিটার গ্যাসও দু চুলায় পায়না গ্যাসের ব্যবহার এমন করুন দশা। ঢাকা শহরের অধিকাংশ সময়ে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকে তার উপর আবার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি কার্যকর করে সরকারের জনগণকে শোষণেরই একটি উদাহরণ।
বক্তারা বলেন ব্যবসায়ীদের স্বার্থে সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রি বাড়ানোর জন্য পাইপ লাইনে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করার উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। তার অংশ হিসেবে দফায় দফায় গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করছে।
তারা অবিলম্বে গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবি জানায়। অন্যথায় এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বৃহত্তর কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে জনগণের অধিকার নিশ্চিত করতে গণআন্দোলন গড়ে তোলা হবে।