খালেদা জিয়ার জামিনের শুনানিঃ আদালতে আইনজীবিদের হট্টগোল

6

প্রবীর আইচঃ খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদনের শুনানি পিছিয়ে দেওয়ায় বিক্ষুদ্ধ হয়ে আদালতে হট্টগোল করে বিএনপিপন্থী আইনজীবিরা। আদালত কক্ষে তিন ঘন্টা সময় ধরে হট্টগোলের কারণে আপিল বিভাগের কার্যক্রমে কার্যত অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

জানাযায়, আজ এজলাসে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদনের শুনানিতে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন জমা না দিয়ে এটর্নী জেনারেল সময় চেয়েছিলেন। সেই প্রেক্ষাপটে আদালত শুনানি পিছিয়ে ১২ই ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার দিন নির্ধারণ করে। তখন বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের হৈচৈ এর মুখে প্রধানবিচারপতির নেতৃত্বে অন্য বিচারপতিরা বিব্রতবোধ করে এজলাস ত্যাগ করেন।

বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা আদালত কক্ষেই অবস্থান নিয়ে থেকে শ্লোগান দিতে থাকেন। বেলা সাড়ে ১১টা দিকে বিচারপতিরা আবার এজলাসে এসে অন্য মামলার শুনানি করার চেষ্টা করেন।

কিন্তু হট্টগোলের কারণে কার্যক্রম চালাতে না পেরে বিচারপতিরা দুপুরে আদালতের এজলাস ত্যাগ করেন। এটর্নী জেনারেল মাহবুবে আলম এক সংবাদ সম্মেলন করে এই ঘটনাকে নজিরবিহীন বলে বর্ননা করেন।আমাদের এই বয়সে এতোটা হট্টগোল দেখিনি।

বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে এজলাসে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, আপিল বিভাগে এমন অবস্থা তারা আগে কখনও দেখেননি। তিনি মন্তব্য করেছেন, বাড়াবাড়ির একটা সীমা থাকা দরকার।

এদিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেছেন, খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা সংক্রান্ত প্রতিবেদন গতরাতেই তৈরি হয়েছিল। কিন্তু সরকারের চাপের কারণে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সেটি আদলতে জমা দেয়নি।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠায় আদালত।
শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে গত বেশ কয়েকমাস যাবত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিজন সেলে কেবিন ব্লকে চিকিৎসাধীন আছেন।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মোট ৩৭ টি মামলা রয়েছে। ইতোমধ্যে ৩৫ টি মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন হয়েছে।