কোন রাজনৈতিক দল ভাঙ্গার নীতিতে বিশ্বাসী নন–প্রধানমন্ত্রী

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রাজনৈতিক বৈচিত্রের প্রয়োজনেই তিনি কোন রাজনৈতিক দল ভাঙ্গার নীতিতে বিশ্বাসী নন। রাজনৈতিক দল হিসেবে প্রতিটি দলের স্বকীয়তা আছে, স্বাধীনতা আছে সিদ্ধান্ত নেবার এবং কোন দল ভেঙ্গে কিছু করা-এটা কিন্তু আমার নীতি নয়।

আজ বিকেলে সরকারি বাসভবন গণভবনে তাঁর সাম্প্রতিক ব্রুনেই সফর নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ব্রুনেই দারুস সালাম-এর সুলতান হাজী হাসানাল বল্কিয়া-এর আমন্ত্রণে গত ২১ থেকে ২৩-এ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী সে দেশ সফর করেন।
ব্রুনেই সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন হলেও এখানে সমকালিন রাজনীতি, খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসংগ, কলম্বোয় সাম্প্রতিক সিরিজ বোমা হামলাসহ আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ,সোনাগাজীর মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত হত্যাকান্ড, আন্দোলনের নামে বিএনপির অতীতের জ্বালাও-পোড়াও এবং রোহিঙ্গা সমস্যা সাংবাদিকদের প্রশ্নে ঘুরে ফিরে আসে এবং প্রতিটি প্রশ্নের অনুপুঙ্খ উত্তর দেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী দলভাঙ্গার প্রচলিত রাজনীতির সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে বলেন, ‘প্রস্তাব আমরা অনেক পাই। তবে, এ বিষয়ে আমি সাংঘাতিকভাবে দ্বিমত করি, কারণ যার যার দল সে সে করবে। আর যারা (বিএনপি) এ ধরনের এজেন্সির মাধ্যমে তৈরি হয়েছে তাদেরকে ভাল চিনি। আশ্রয়টা সেখানেও চায় এবং ভাঙ্গতে বললে সেখানে ভাঙ্গাটাতো কোন ব্যাপারই না। আমরা কেন করতে যাব সেরকম।’

প্রধানমন্ত্রী বিএনপির বিষয়ে অপর এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, ‘রাজনীতিতে পুনরুজ্জীবিত করাবার কোন বিষয় রয়েছে কিনা আমার জানা নেই। আর খালেদা জিয়ার প্যারোলের বিষয় নিয়ে যে প্রশ্ন এসেছে, তার উত্তরে আমি বলবো- প্যারোলের জন্য কিন্তু আবদেন করতে হয়। এ নিয়ে কিন্তু এখনো কেউ আবেদন করেনি। আর যেহেতু কেউ আবেদন করেনি তাই এ বিষয়ে আমাদের এখন বলার বা করার কিছু নেই।
এ সময় বিএনপি’র এক সংসদ সদস্যের শপথ গ্রহণ প্রসংগে তিনি বলেন, ‘এখানে সরকারের কোন চাপ নেই।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড.একে আব্দুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম এবং মৎস ও প্রাণি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান ।
এছাড়া মন্ত্রি পরিষদের সদস্যবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাগণ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন গণমাধ্যম এবং সংবাদ সংস্থার সম্পাদক, সিনিয়র সাংবাদিক ও প্রতিনিধিবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।