কোটা পদ্ধতি বাতিল নয়, সংস্কার চায় সংসদীয় কমিটি

যুগবার্তা ডেস্কঃ চাকরিতে কোটা পদ্ধতি পুরো বাতিল না করে সংস্কারের পক্ষে মত দিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। এদিকে মন্ত্রণালয় বলেছে, তারা এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার অপেক্ষায় রয়েছে, তিনি যেভাবে নির্দেশ দেবেন সেটাই করা হবে। গতকাল রোববার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় কমিটির সদস্যরা কোটা পদ্ধতি সহজীকরণের সুপারিশ করেছে।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি সাংবাদিকদের বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের কথা বলেছেন ঠিকই। কিন্তু আমাদের কিছু দায়বদ্ধতা রয়েছে। দেশের প্রতি দায়বদ্ধতা রয়েছে। ইতিহাসের (মুক্তিযুদ্ধ) প্রতি দায়বদ্ধতা রয়েছে। আঞ্চলিকতার প্রতি দায়বদ্ধতা রয়েছে। পিছিয়ে পড়া নৃগোষ্ঠীর প্রতিও আমাদের দায় আছে। সংবিধানে সমতার কথা বলা আছে। পিছিয়ে পড়া গোষ্ঠীর সুযোগ সুবিধার কথা বলা হয়েছে। এসব বিবেচনা করে আমরা কোটা পদ্ধতি সহজিকরণের কথা বলেছি। যুক্তিযুক্ত সংস্কারের কথা বলেছি।

বৈঠকে শিক্ষা মন্ত্রাণালয়ের অধীনে বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রণয়ন পদ্ধতি, গোপনীয়তা ও সুরক্ষা বিষয় এবং সরকারি কর্ম কমিশনের দক্ষতা ও মনোন্নয়নের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্ন পত্র ফাঁস ও নকল বন্ধ, পরীক্ষা পদ্ধতি ও পরীক্ষা কেন্দ্র কমানো এবং শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা যুগপোযোগী করার বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। কমিটি চলমান এইচএসসি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস না হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করে।

কমিটির সভাপতি এইচ এন আশিফুর রহমানের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কমিটি সদস্য জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক, এ. বি. এম ফজলে করিম চৌধুরী, র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, খোরশেদ আরা হক, জয়া সেন গুপ্তা।
এছাড়া জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব.বাংলাদেশ সরকারী কর্মকমিশনের সচিবসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।