করোনায় সতর্কতা ও হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

178

ডাঃ মোঃ আহসান হাবীব রুবেল : বিশ্বব্যাপি করোনা মহামারিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে।জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের না হওয়া ও সকল ধরনের জনসমাগম পরিহার করে চলা। আফিস ও যানবহন চলাচলে সতর্ক হওয়া।করোনা মহামারিতে হোমিওচিকিৎসারমাধ্যমে সাধারণ মানুষ স্বাস্থ্যসেবা পেয়েছে। হোমিওপ্যাথিতে কোন রোগের চিকিৎসা করে না, রোগীর চিকিৎসা করেথাকে। তাই হোমিওপ্যাথি একটি লক্ষনভিত্তিক চিকিৎসা পদ্ধতি। সাধারনত জ্বর, ঠান্ডা, কাশি সহ রোগী প্রতিনিয়ত হোমিও ঔষধ সেবন করে ভাল আছে। লক্ষনভিত্তিক চিকিৎসা তাই ভিন্ন ভিন্ন রোগীর ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা মেডিসিন হতে পারে। হোমিওপ্যাথিক ঔষধ প্রথমে রোগীর জীবনী শক্তি শাক্তশালী করে রোগ শক্তিকে পরাভুত করে।তাই জীবনী শক্তিকে শক্তিশালী করার জন্য ঔষধ এর পাশাপাশি দেশি ফল, পেয়ারা, আমলকি, লেবু ও শাকসবজি খাওয়া প্রয়োজন। কিছু সময় পরপর হালকা গরম পানি সেবন করা। নিয়মিত ব্যায়াম করা উচিত।করোনা যেহেতু গতবারের চেয়ে শক্তিশালী তাই আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে ।-লেখকঃ প্রভাষক, শামসুর রহমান শরীফ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ইশ্বরদী, পাবনা।

*মতামত বিভাগে প্রকাশিত সকল লেখাই লেখকের নিজস্ব ব্যক্তিগত বক্তব্য বা মতামত।