করোনায় আক্রান্ত ১৯৩ দেশ: বিশ্ব প্রায় লকডাউন

16

রফিকুল ইসলাম সুজন: বিশ্বের ১৯৩ দেশে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। নুতন নুতন দেশ আক্রান্ত হওয়ায় আতংকিত হয়েছে বিশ্ব নেতারা। বিশ্ব এখন লকডাউনের পর্যায় পৌঁছেছে।

চীনের উহান রাজ্যে গত ডিসেম্বরে এই ভাইরাসটির মাধ্যমে আক্রান্ত শুরু হয় সেখানে বসবাসকারীরা। তারপর চীনের অন্য রাজ্য ছাড়িয়ে চলে যায় সারাবিশ্বের বিভিন্ন দেশে দেশে। যা এখনও অব্যাহত রয়েছে।চীনে নুতন করে আর আক্রান্ত নাহলেও এ পর্যন্ত ৮১ হাজার ৫৪ জন আক্রান্ত ।মৃত্যু ৩ হাজার ২৬১ জন।

এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে। এক দেশের সাথে আগের দেশের সকল ধরনের সরাসরি যোগাযোগ প্রায় বন্ধ করা হয়। যা এখন বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে দেশগুলো

এখনও এই ভাইরাসের কোন ঔষধ আবিস্কার হয়নি। জাপানের একটি ওষুধ কার্যকর ভূমিকা রাখছে বলে চীন দাবি করেছে। তবে উৎপাদনকারী কোম্পানি কিছুই জানায়নি। এর আগে শুধু মাত্র কিউবা একটি প্রাথমিক পর্যায় ঔষধ আবিস্কার হয়। সেটা দিয়েই চীনে অনেক সফলতা এসেছে। পুরো টিকা আবিস্কারে চেষ্টা চলছে দেশে। আমেরিকা আজ মানব দেহে তাদের আবিস্কারের ঔষধ পরীক্ষা মুলক প্রয়োগ করবে। তাদের আশা সফলতা আসবে। কানাডার একদল বিজ্ঞানীও দাবি করেছে তারা টিকা আবিস্কারের কাছাকাছি পৌঁছেছে। চীনও অনেক দূর এগিয়েছে বলে দাবি করছে।

কিন্তু তার আগে যা হওয়ার হয়ে গেছে।এ পর্যন্ত ১৯৩ দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।প্রসারিত হচ্ছে নতুন নতুন দেশে। বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৫৩ হাজার ১০০ জন।সারাবিশ্ব এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৫ হাজার ৩৪৬ জন। সুস্থ হয়েছে ৯৯ হাজার ২৫৯ জন। যুক্তরাষ্ট্রের ১০ রাজ্য শাটডাউন করে সর্বোচ্চ অবস্থা জারি করা হয়েছে। সেখানে মৃত্যু ৩৪১ জন। স্পেনে মৃত্যু ২ হাজার ১৮২ জন।ইতালীতে ১৮ চিকিৎসসহ মৃত্যু ৫ হাজার ৪৭৬ জন। ইরানে মৃত্যু ১ হাজার ৫৫৬ জন। ফ্রান্সে মৃত্যু ৫৬২ জন। জার্মানিতে মৃত্যু ৯৫ জন।ভারতে মৃত্যু ৭ জন। দিল্লীসহ ৮০ জেলায় লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ২৭ মার্চ রাত ১২ টা পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনাজে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারিকরা হয়। বাংলাদেশে আক্রান্ত হয়েছে ১৭ জন। বাংলাদেশে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে ৩৩ জন।এর মধ্যে ৫ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে।

কুয়েতে প্রতিদিন ১১ কারফিউ জারি করা হয়েছে। কুয়েত গাঁজা সুরক্ষার জন্য ১৫০ মিলিয়ন ডলার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।
সৌদিতে ২১ দিনের জন্য সন্ধ্যা ৭ টা থেকে ভোর ৬ টা পর্যন্ত কারফিউ ঘোষণা করেছে।

কলোম্বিয়ার কারাগারে করোনা আতংকিত হয়ে দাঙ্গায় নিহত ২৩ জন।
জার্মানি চ্যান্সেলর মেরকেল হোম কোয়ারান্টাইনে গেছেন।
নিউজিল্যান্ডের সকল নাগরিক আইসোলেশনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার।
মিশরে সকল মসজিদ ও গীর্জা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

থাইল্যান্ডে সকল দোকান পাট, বার, হোটেল বন্ধ করা হয়েছে।মিশরে আন্তর্জাতিক বিমান যোগাযোগ বন্ধ। বন্ধ করেছে মসজিদ।

আমেরিকা ও কানাডা তাদের সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে।

বিশ্বে আড়াই কোটি মানুষ চাকুরি হারাচ্ছে বলে ধারনা করছে আলোচকরা।

এদিকে মহামারির আশংকায় আন্তর্জাতিকভাবে ভারতসহ ১০ দেশের সাথে সকল বিমান যোগাযোগ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পাসপোর্ট বায়োমেট্রিক প্রক্রিয়া অনিদিষ্টকাকের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাদেশে গনপরিবন চলাচল সীমিত করা হয়েছে। ২৫ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে সাধারন ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার থেকে সারাদেশে সেনাবাহিনী নামানো হচ্ছে। যাতে জনসমাগম বন্ধ করা যায়। হোম কোয়ারান্টািনের নিয়ম না মানলে ব্যবস্থা নেওয়ার হবে।দেশের অনেক এলাকা স্থানীয় প্রশাসন লকডাউন করে দিয়েছে। বন্ধ করে দিয়েছে দোকানপাট। প্রয়োজনে দেশে কারফিউ দেওয়া হবে। এ জন্য সেনা প্রস্তুত করা হয়েছে সেনাবাহিনীকে।

এ বিষয় পরবর্তী করনীয় নিয়ে ২৫ মার্চ জাতীয় উদ্দ্যেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাষন দিবেন।
বিদেশে অবস্থাকারী প্রবাসীদের দেশে প্রবেশে নিষেজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এসে পরলে প্রয়োজনে পুশ ব্যাক করার কথা বলা হচ্ছে। ইতিমধ্যে আগত প্রবাসীদের হোম কোরাইন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নির্দেশ মানার জন্য কঠোর হতে জরিমানার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইতিমধ্যে জেলায় জেলায় জরিমানা করা হয়েছে।আইসোলেশনে রয়েছে ৫১ জন।প্রতিষ্ঠানিক হোক কোয়ারান্টাইনে রয়েছে ৪৬ জন। হোম কোয়ারান্টাইনে আছেন ২২ হাজার। পরিস্থতি মোকাবেলায় ৫ শ ডাক্তার প্রস্তর করা হচ্ছে।