এরশাদ ধর্ম-বর্ণের মধ্যে সহাবস্থানের রাজনীতি প্রবর্তন করেছেন–জি.এম. কাদের

24

যুগবার্তা ডেস্কঃ জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি.এম. কাদের বলেছেন, পল্লীবন্ধু এরশাদ এদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির রাজনীতি প্রবর্তন করে সকল ধর্ম-বর্ণের মধ্যে শান্তিপূর্ণ সহবস্থান নিশ্চিত করেছেন। তিনি সংখ্যালঘুদের প্রতি সহানুভুতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তাঁর নীতি ও আদর্শ আমাদের কাছে ঐতিহ্য হয়ে থাকবে।
জনাব কাদের আজ মঙ্গলবার চেয়ারম্যানের বনানীস্থ কার্যালয়ের মিলনায়তনে ঢাকা টু গৌহাটি সরাসরি বিমান চলাচল শুরু উপলক্ষ্যে বাংলাদেশে সফররত ভারতের আসাম, পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর প্রদেশের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক কর্মী, সাংবাদিক, অর্থনীতি ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দলের সদস্যদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন।

এসময় সফরকারী সদস্যরা জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রোগমুক্তি এবং সুস্থ্যতা কামনায় প্রার্থনা করেন।

জি.এম. কাদের, বাংলাদেশের সফররত ভারতীয় প্রতিনিধি দলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ভারতের সাথে আমাদের সুসম্পর্ক অত্যন্ত সুনিবির। দু’দেশের মধ্যে বিরাজমান সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক সম্পর্ক আগামী দিনে আরো শক্তিশালী হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।
এসময় জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ঐতিহ্যগত। আমাদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে জঙ্গীবাদ কিছুটা সমস্যা সৃষ্টি করেছিলো। সবার সম্মিলিত প্রতিরোধে জঙ্গীবাদের অপচেষ্টা নস্যাৎ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, পল্লীবন্ধু এরশাদ রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ঘোষনা করলেও হিন্দু ও বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের জন্য কল্যাণ ট্রাষ্ট স্থাপন করে সকল ধর্মের জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত করেছেন। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, সুনীল শুভ রায়।
এসময় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য- মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা, রেজাউল ইসলাম ভূইয়া, আলমগীর সিরকার লোটন, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা সেলিমুর উদ্দিন, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা এমএ রাজ্জাক খান রাজ্জাক, সুজন দে উপস্থিত ছিলেন।
ভারতের ১৩ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আসামের ব্যতিক্রম-মাসডো’র চেয়ারম্যান ড. সৌমেন ভারদীয়া, দৈনিক আজকালের চিফ রিপোর্টার তরুন চক্রবর্তী, আসামের এমজেএল গ্রুপের চেয়ারম্যান জেহেরুল ইসলাম, উত্তর প্রদেশের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বিজয় নাইডু, ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ আসামের প্রেসিডেন্ট বিভুতি দত্ত, সংগীত শিল্পী মনোজ কুমার শীল, অর্থনীতিবিদ মুকুল চন্দ্র গোগই, আসামের বিশিষ্ট শিল্পপতি সুবিনয় চক্রবর্তী, সমাজকর্মী মৃদুল সাহা।