এরশাদের চেহলামে রাজধানী জুড়ে দোয়া মাহফিল গণভোজ

19

মাহাবুবুর রহমানঃ প্রয়াত রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের চেহলাম উপলক্ষে রাজধানী জুড়ে গণভোজের আয়োজন করেছে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ জাপা। শনিবার দিনব্যাপী ঢাকা মহানগরের ৫২টি থানায় এবং পার্টির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনসমুহ রাজধানীর বিভিন্ন স্পটে গণভোজের আয়োজন করা হয়। এসব প্রোগামের সিংহভাগই স্থানে পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের নিজে গরীবদের মাঝে খাদ্য বিতরন করেন। রাজধানী ছাড়াও রংপুরসহ সারাদেশে এরশাদের চেহলাম অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকাল সাড়ে নয়টায় আব্দুল্লাহপুর থেকে গণভোজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু করেন গোলাম মোহাম্মদ কাদের। এরপর তিনি গুলশান, উত্তর থান, তেজগাও, কাওরান বাজার, মোহাম্মদপুরসহ মহানগরের উত্তরের বিভিন্ন থানায় গণভোজের সুচনা করেন তিনি। দুপুর দেড়টার সময় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জিএম কাদের। এসময় সৈয়দ আবু হোসেন বাবলার সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ, জিয়াউদ্দিন বাবলু, এসএম ফয়সল চিশতি, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, জহিরুল আলম রুবেল, হাসিবুল ইসলাম জয়, মনিরুল ইসলাম মিলন প্রমুখ। এসময় জিএম কাদের তার বক্তব্যে বলেন, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ আজীবন গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দিতে কাজ করেছেন। দেশ ও মানুষের অধিকারের প্রশ্নে কখনো আপোষ করেননি পল্লীবন্ধু এরশাদ। তিনি বলেন, রাজনীতির চার ভাগের একভাগ সময়ে দেশ পরিচালনা করে উন্নয়নের অসামান্য র্কীতি গড়েছেন তিনি। আর বিরোধী দলীয় নেতা বা বিরোধী দলের সারিতে থেকেও গণমানুষের কল্যানে কাজ করেছেন জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনি বলেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ছিলেন এদেশের মানুষের মনের রাজা। তিনি দেশবাসীর অন্তর জয় করে অকৃত্রিম ভালোবাসা নিয়েই পুথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সব সময় দেশের মানুষের মনের ভাষা বুঝতেন। দেশের মানুষের মতামতের ওপর শ্রদ্ধা রেখেই দেশ পরিচালনা করছেন তিনি।

এরপর মহানগর দক্ষিণের বিভিন্ন থানায় গণভোজে অংশ নিতে নেতাকর্মীদের বহর নিয়ে রওনা হন। সেখান থেকে তিনি শাহজাহানপুর, কমলাপুর, টিকাটুলী, গেন্ডারিয়াসহ বিভিন্ন থানা হয়ে শ্যামপুর-কদমতলীতে যান। সেখানে স্থানীয় এমপি সৈয়দ আবু হোসেন বাবলার আয়োজনে মুরাদপুর, মীরহাজীরবাগ, মুন্সিবাড়ী, জুরাইন, ঢাকা ম্যাচ, মোহাম্মদবাগ ও শ্যামপুর বালুর মাঠে দারিদ্রদের মাঝে খাবার বিতরণ করেন জিএম কাদের। সেখান থেকে তিনি ঢাকা-৬ নির্বাচনী এলাকায় যান তিনি। সেখানে কাজী ফিরোজ রশীদের আয়োজনে গেন্ডারিয়া, ওয়ারী, কোতায়ালী ও সুত্রাপুরে খাবার বিতরণ করেন।
দিনব্যাপী এসব অনুষ্ঠানে জিএম কাদেরের সাথে উপস্থিত ছিলেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, এসএম ফয়সল চিশতি, হাজী সাইফুদ্দিন মিলন, এসএম মান্নান, জহিরুল আলম রুবেল, হাসিবুল ইসলাম জয়, মনিরুল ইসলাম মিলনসহ পার্টির সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।