একটাকেও ছাড়ব না: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ডেস্ক রিপোর্ট: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা হুঁশিয়ার করে বলেছি আপনারা আন্দোলন করেন, সংগ্রাম করেন, মিছিল করেন, মিটিং করেন কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু যদি কোনো মানুষকে পুড়িয়ে মারার বা বোমা মারার বা গ্রেনেড মারার বা এ ধরনের অত্যাচার করতে যায় তাদের একটাকেও ছাড়ব না।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ওপর যে আঘাত দেওয়া হয়েছে আমরা তা ভুলিনি। আমরা সহ্য করছি দেখে যেন এটা মনে না করে যে, সহ্য করাটা আমাদের দুর্বলতা। দুর্বলতা না। বাংলাদেশের জনগণ আওয়ামী লীগের সঙ্গে আছে, আমাদের সঙ্গে আছে। খুনিদের সঙ্গে নেই।

তিনি বলেন, আমরা তাদের বাধা দিচ্ছি না। কিন্তু যেভাবে তারা ওই অত্যাচারগুলো করেছিল আমরা ভুলব কীভাবে? সাধারণ মানুষ ভুলবে কীভাবে? তার ওপর তাদের অগ্নি সন্ত্রাস, এটা কোন মানুষের কাজ। জীবন্ত মানুষগুলোকে আগুন দিয়ে দিয়ে পুড়িয়ে মারা, এটাই নাকি বিএনপির আন্দোলন!

বিএনপি ও আওয়ামী লীগ আমলের তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা এদেশের জনগণের জন্য কাজ করছি। জনগণের কল্যাণই আমাদের লক্ষ্য। কিন্তু অপর পক্ষে বিএনপি কী করে? তারা ক্ষমতায় আসা মানে অত্যাচার, নির্যাতন। আপনারা একবার চিন্তা করে দেখেন ২০০১ এর নির্বাচনের পর কীভাবে বিএনপি এবং জামায়াতের সন্ত্রাসীরা সারা বাংলাদেশে অত্যাচার নির্যাতন করেছে।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন মহিলা আওয়ামী লীগের বিদায়ী সভাপতি সাফিয়া খাতুন এবং সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃক।সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

জাতীয় সম্মেলনের পর সংগঠনের কার্যনির্বাহী সংসদের নতুন সভাপতি হিসেবে মেহের আফরোজ চুমকি এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে শবনম জাহান শিলার নাম ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।