উন্নয়নের এক নতুন পর্যায়ে পৌঁছেছে বাংলাদেশ–মেনন

যুগবার্তা ডেস্কঃ “আমরা উন্নয়নের এক নতুন পর্যায়ে পৌঁছেছি। আজ জাতিসংঘে ‘কমিটি ফর পলিসি ডিপার্টমেন্ট’ বাংলাদেশকে স্বল্পউন্নগ দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে ভুষিত করেছে। এটাকে যদি ধারাবাহিকভাবে ধরে রাখতে পারি তাহলে ২০২৪ সালের মধ্যে আমরা উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হবো। শুধু উন্নয়নশীল নয়, একটি মর্যাদাশীল দেশ হিসেবে বিশ্ববাসীর কাছে পরিচিত হবো। একদিন আমাদেরকে মিসকিন বলা হতো, আমাদেরকে অবজ্ঞা করা হতো, বলা হতো তলাবিহীন ঝুড়ি, সেই বাংলাদেশ আজ নিজেরা খাওয়ার পরেও ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে খাওয়াতে পারছে এবং খাদ্য বিদেশে রপ্তানি করছে। সরকারের টেকসই উন্নয়নের মূল কথা হলো কাউকে পিছনে রাখা যাবে না। সবাইকে নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। রোববার বিকেলে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর দয়াগঞ্জে জাতীয় বধির কল্যাণ হাসপাতাল উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি।”

সভায় মেনন আরোও বলেন, শব্দ দূষণ এখন এমন পর্যায়ে পৌছে গেছে যে তা ছোট বাচ্চাদের কানের শ্রবণ শক্তি দিন দিন ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। আমরা সাধারণভাবে ভাবি শব্দ দূষণে কোনো অসুবিধা হয় না, কিন্তু পৃথিবীর প্রতিটি দেশে সকল শহরে শব্দের মাত্রা নির্ধারণ করে দেয়া হয়। আমাদের দেশে এটি করা হয় না। আমাদের গাড়ীগুলো হাইড্রোলিক হর্ণ এতো বেশি ক্ষতিকর যে, হাইকোর্ট বাধ্য হয়ে আদেশ দিয়েছে হাইড্রোলিক হর্ণ বন্ধ করতে হবে। তারপরও আমরা সেভাবে সচেতন হই না হতে পারি না। এ বিষয়ে আমাদের অবশ্যই সচেতন হতে হবে।

জাতীয় বধির কল্যাণ হাসপাতালের প্রকল্প পরিচালক ডাঃ মোহাঃ মুজিবুর রহমান মিয়াজীর সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব ফিরোজ কিবরিয়া, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ শফিকুর রহমান, ডিএমপি’র উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব তারেক, শুভেচ্ছা এইডস এন্ড ড্রাগস্-এর ভাইস চেয়ারম্যান রেজাউল করিম রেজা, বিশিষ্ট সমাজসেবক মোজাহারুল ইসলাম সোহেল প্রমুখ।