উজিরপুরে মৎস্যঘেড় শ্রমিকের মৃতদেহ নিখোঁজের ১৫ ঘন্টা পরে উদ্ধার

কল্যাণ কুমার চন্দ, বরিশালঃ বরিশালের উজিরপুর উপজেলার পশ্চিম সাতলায় একটি মৎস্য ঘেরের শ্রমিক শ্রী অপু বাইন(২২)’র মৃতদেহ নিঁখোজের ১৫ ঘন্টা পরে সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারী) সকাল ৯টায় পশ্চিম সাতলা বেড়িবাঁধের স্লুইসগেট সংলগ্ন কচা নদী থেকে উদ্ধার করেছে। মৃতদেহটি উদ্ধারের পরে উজিরপুর থানা পুলিশ ময়না তদন্তের জন্য আজ সোমবার দুপুরেই বারিশাল শেবাচিম হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করেছে।
গতকাল রবিবার রাতেই সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে প্রত্যক্ষদর্শি ও সহযোগী শ্রমিক পরিমল বাইন,রাধাকান্ত হালদার এবং নিহত অপু বাইনের পিতা গৌরাঙ্গ বাইন,বড়ভাই গোকুল বাইন, প্রতিবেশি মৃনাল বাইন, ডাঃ মনোরঞ্জন বাইন,কৃষ্ণ কান্ত বাইন অভিযোগ করে বলেন প্রতিদিনের মত অপু,পরিমল ও রাধাকান্ত রবিবার (২৫ ফেব্রুয়ারী) সকাল থেকেই পশ্চিম সাতলা ঐলাকার ২নং ওয়ার্ডের একটি মৎস্য ঘেড়ে শ্রমিক হিসাবে মাছ ধরার কাজ করে আসছিলো। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত তারা ওই ঘেড়ে মাছ ধরার কাজ শেষ করে সেরে বাড়ি যাওয়ার প্রস্তুতি নিলে তখন ওই ঘেড়ের মালিক পক্ষের জনৈক মোঃ গিয়াস উদ্দিন মিয়া ও টিটুল বিশ্বাস সন্ধ্যা ৬টার দিকে মৎস্য ঘেড়ের কঁচা নদী ও বেড়িবাধ অংশের স্লুইচগেটে আটকে থাকা কচুরিপানা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য গেটের মধ্যে নামতে বললে অপু রাজি না হওয়ায় মোঃ গিয়াস মিয়া তাকে চাড়াল ছ্যচর বলে গালিগালাজ দিয়ে ভয় দেখিয়ে পানীর তীব্র স্রোতের মধ্যে স্লুইচগেটের পাইপের কচুরিপানা পরিস্কার করতে ঢুকতে বাধ্য করে ঘের মালিক মোঃ গিয়াস মিয়া।
এ কারনে অপু বাইন তীব্র স্রোতে স্লুইজগেটের পাইপের মধ্যে তলিয়ে যায়। সাথে সাথে অপুর সহযোগী শ্রমিক রাধাকান্ত হালদারকেও গিয়াস মিয়া ওই পাইপের মধ্যে অপুকে খোঁজার জন্য ঢুকাতে বলেল তিনি রাজি না হওয়ায় তাকেও গিয়াস মিয়া গালিগালাজ করে বলে রাধাকান্ত হালদার অভিযোগ করেছেন ।
ঘটনার প্রায় দেড়ঘন্টা পরে রাত সারে সাতটার দিকে বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানিয় শত শত লোকজন ঘটনাস্থলে জড়ো হয়। সংবাদ পেয়ে উজিরপুর থানা পুলিশ ও সংবাদকর্মিরা ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী মহল বিষয়টি ধামাচাপা দিতে বা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে ব্যাপক প্রচেষ্টা চালায় এবং নিহত অপু বাইনের পরিবারের লোকজনদের প্রতি বিভিন্ন প্রকার ভয় ভীতি দেখায় । তবে ঘটনার পর থেকেই মোঃ গিয়াস মিয়া পলাতক রয়েছে।
এ বিষয় উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্য মোঃ গোলাম সরোয়ার বলেছেন ঘটনা শুনেছি, মৃতদেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।