উজিরপুরে মুক্তিপণ না পেয়ে স্কুল ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা করেছে সহপাঠীরা

উজিরপুর প্রতিনিধিঃ উজিরপুরে স্কুল ছাত্রকে অপহরণ করে মুক্তিপণ না পেয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে তার সহপাঠীরা। আজ সকাল ৭টায় বাবুগঞ্জ উপজেলার রমজানকাঠী এলাকার সন্ধ্যা নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সে উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের ভরসাকাঠী গ্রামের সোবাহান হাওলাদারের ছেলে বামরাইল এ.বি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্র ইস্রাফিল হোসেন নয়ন।

গতকাল শনিবার বিকাল ৫টায় দাদা খালেক হাওলাদার ও ছোট বোন ফারজানা আক্তারের সাথে বাড়ির পার্শ্ববর্তী জমিতে লাল শাক তুলছিল। দূর থেকে বন্ধু বেশে কে বা কারা তাকে ইশারা করে সবার চোখকে ফাঁকি দিয়ে ডেকে নিয়ে যায়। এ সময় তার দাদী রিজিয়া বেগমের মোবাইলটি নাতি নয়নের কাছে ছিল। এর পর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। নয়নের পিতা মাতা চাকুরীর সুবাদে চট্টগ্রামে অবস্থান করলে বিষয়টি তাদের নজরে গেলে রাত সাড়ে ৯টায় ঐ নম্বরে ফোন দিলে অপর প্রান্ত থেকে তার পিতাকে ছেলেকে পেতে হলে ২০ লক্ষ টাকা দিতে হবে বলে জানায়। কিছুক্ষন পরে আবারো তার পিতার নম্বরে ফোন দিয়ে ১০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। র‌্যাব-পুলিশকে জানালে এবং টাকা না পেলে তাকে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেয়। সকালে স্থানীয়রা নদীর কিনারে বস্তাবন্দী অবস্থায় লাশ ভাসতে দেখে আগরপুর পুলিশ ক্যাম্পে খবর দেয়। ক্যাম্প ইনচার্জ এস.আই মহসিন, উজিরপুর মডেল থানার এস,আই হারুন, বরিশাল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উজিরপুর সদর সার্কেলসহ বাবুগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ দিপংকর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ঘটনাস্থল থেকে সন্দেহজনক ভাবে একই এলাকার ওসমান হাওলাদারের ছেলে আশিক হাওলাদার (১৭) কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আকরাম হোসেন জানান, অপহরণকারীরা মুক্তিপণ না পেয়ে নদীর পাশে একটি পাটক্ষেতে উপর্যুপরি কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে লাশ বস্তাবন্দী করে নদীতে ফেলে দেয় তার সহপাঠীরা। আটককৃত হত্যার সাথে জড়িত বলে স্বীকার করেছে।