উজিরপুরে ভুল বুঝিয়ে স্ত্রীকে দিয়ে তালাক, স্বামী ও কাজীর বিরুদ্ধে মামলা

4

উজিরপুর প্রতিনিধিঃ বরিশালের উজিরপুরে স্ত্রীকে ভুল বুঝিয়ে তালাকনামায় স্বাক্ষর নিয়ে তাড়িয়ে দিলেন স্বামী। অসহায় স্ত্রী এক সন্তানের জননী স্বামী ও কাজীর বিরুদ্ধে আদালত ও থানায় পৃথক পৃথক মামলা দায়ের করেন। মামলা ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায় উপজেলার আটিপাড়া গ্রামের আঃ লতিফ সরদারের ছেলে মোঃ আইয়ুব আলী (৩৮) ইসলামী শরিয়া মোতাবেক ১৭ বছর পূর্বে গৌরনদী উপজেলার লক্ষণকাঠী গ্রামের রোজিনা বেগম(৩০) কে বিবাহ করে। তাদের ঔরশজাত ১৩ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিবাহের পর থেকে যৌতুকের জন্য বিভিন্ন সময় মারধর সহ চাঁপ প্রয়োগ করে আসতো স্বামী আইউব আলী। কিছুদিন পূর্বে এনজিও থেকে ৫০ হাজার টাকা উত্তোলনের কথা বলে তাঁকে নিয়ে বামরাইল ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার মোঃ ছালেহ খলিফার নিকট যান। সেখানে এনজিও এর টাকা উত্তোলনের কথা বলে স্বাক্ষর করিয়ে নেন। ৮ মে তার স্বামী তাকে বেধরক মারধর করে ঘর থেকে বের করে দেয় এবং তাকে বলে তুই স্বেচ্ছায় তালাক দিয়েছ। গুরুত্বর আহত অবস্থায় রোজিনা বেগম বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি হয়। সুস্থ হয়ে উজিরপুর মডেল থানায় ১৭ মে রোজিনা বেগম বাদী হয়ে স্বামী আইয়ুব আলী সরদার, দেবর জসিম সরদার, জা লিপি বেগমকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। এছাড়া বরিশাল চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বামী মোঃ আইউব আলী সরদার, নিকাহ রেজিষ্ট্রার মোঃ ছালেহ খলিফার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এদিকে যৌতুকলোভী স্বামী আইউব আলী সরদার তরিঘরি করে নতুন করে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এব্যাপারে অভিযুক্ত আইউব আলী জানান আমার স্ত্রী স্বেচ্ছায় তালাক দিয়েছে তাই আমি দ্বিতীয় বিবাহ করেছি। নিকাহ রেজিস্ট্রার সালেহ খলিফা জানান ভুল বুঝিয়ে মেয়ের কাছ থেকে স্বাক্ষর নেওয়া হয়নি সে স্বেচ্ছায় তালাক নামা প্রদান করেছে।