উজিরপুরে ইভটিজিং’র প্রতিবাদ করায় আতংকে মুক্তিযোদ্ধার পরিবার

উজিরপুর প্রতিনিধিঃ বরিশালের উজিরপুরে ইভটিজিং’র প্রতিবাদ করায় মাদ্রাসার ছাত্রী ও তা পিতা-মাতাকে পিটিয়ে আহত করেছে বখাটেরা। থানায় অভিযোগ দেয়ার ২০ দিন অতিবাহিত হলেও বিচার না পেয়ে আতংকে ছাত্রীর পরিবার। এ ঘটনায় ফেনীর সোনাগাজী নুসরাত জাহানের মত দুর্ঘটনার আশংকা করছে এলাকাবাসী।

জানা যায়, উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের ঘন্ডেশ্বর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মৃত দলিল উদ্দিন হাওলাদারের ছেলে ফরিদ হাওলাদারের মেয়ে কালিহাতা মাহমুদিয়া আলিম মাদ্রাসার ৮ম শ্রেনীর শিক্ষার্থীকে মাদ্রাসায় যাওয়া আসার পথে প্রায়ই উক্তাক্ত করত একই এলাকার সোহেল ফকির(১৯),অনিক মিঞা(২১)।

ঘটনার দিন ২৩ মার্চ বিকেলে ঐ ছাত্রী ফুফুর বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা ঘন্ডেশ্বর গ্রামের শিকারী বাড়ীর সামনে পৌছলে বালু ভর্তি ট্রলি নিয়ে বখাটে সোহেল ও অনিক তার পথরোধ করে শিক্ষার্থীর কাছে তার মোবাইল ফোন নম্বর চায়। নম্বর দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে বখাটেরা ছাত্রীকে অশ্লিল ভাষায় গালিগালাজ করে রাস্তায় প্রকাশ্যে টানা হেচরা করে শ্লীলতা হানি ঘটায়। বিষয়টি ছাত্রী তাৎক্ষনিক মোবাইল ফোনে তার পিতা-মাতাকে জানালে তারা ঘটনাস্থল ছুটে এসে প্রতিবাদ করলে ক্ষিপ্ত হয়ে বখাটে সোহেল,অনিক এবং তাদের সাথে একই এলাকার আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল হাই হাওলাদার যুক্ত হয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে মা-বাবা ও মেয়েকে গুরুতর আহত করে।

এ ব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানায় হত ২৪ মার্চ ছাত্রীর পিতা ফরিদ হাওলাদার বাদী উল্লেখ্য অভিযুক্ত ৩ জনকে আসামী করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। মামলার বাদী জানান থানায় অভিযোগ দেয়ার পরে উজিরপুর থানার এস.আই জসিম উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মিমাংশার প্রস্তাব দিয়ে ঘটনা ধামাচাঁপা দেয়ার চেষ্টা করে। প্রভাবশালীদের হুমকীর মূখে পুলিশের কথামত মিমাংশায় রাজি হই। এরপর শালিশ গৌরাঙ্গ লাল কর্মকার,ইউপি সদস্য বাদল, নান্না ফকির মিলে ৫ বার শালিশি বৈঠকের তারিখ পিছিয়ে দিয়ে তাল বাহানা করে। অপর দিকে থানায় অভিযোগ দেয়ার ২০ দিন অতিবাহিত হলেও কোন সমাধান না পেয়ে উজিরপুর প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের কাছে বিষয়টি সরাসরি উপস্থিত হয়ে জানালে খবর পেয়ে এস.আই জসিম উদ্দিন ক্ষিপ্ত হয়ে বাদী ও ভিকটিমকে হুমকী দিয়ে আসামী পক্ষের কাছে ফোন করে তা জানিয়ে দেয়। বাদীর পরিবার বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ ব্যপারে এস.আই জসিম উদ্দিন জানান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উভয় পক্ষকে মিমাংশার জন্য বলা হয়েছে। তবে মেয়েটাও বেশী সুবিধার নয়। শালিশরা উপস্থিত না হলে আমার কি করার আছে। অভিযুক্ত আব্দুল হাই বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে নিজেকে নির্দোষ দাবী করেন। ইউপি সদস্য বাদলের মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে ফোনটি রিসিভ করেননি। শালিসদার গৌরাঙ্গলাল কর্মকার জানান, জসিম দারগা আজ সোমবার (১৫ এপ্রিল) মোবাইলের মাধ্যমে জানান, আগামী দিন ১৬ এপ্রিল সকাল ১০টায় উভয় পক্ষকে নিয়ে শালিস বৈঠকের আয়োজন করতে হবে।