আমার দেখা ছাত্র রাজনীতি

অরুপ সরকারঃ জন্মটা ছাত্র রাজনীতির উত্তাল কালে হলেও আমার বেড়ে ওঠা তথা ছাত্র রাজনীতি বুঝতে শেখার সময়কাল ছাত্র রাজনীতির বন্ধা কালে । এ সময় ছাত্র রাজনীতি অনেকটাই মাঝি ছাড়া নৌকার মতো । যেখানে ছাত্র নেতাদের হবার কথা ত্যাগী, সাহসী ও পরিশ্রমী সেখানে এই সময়ের অধিকাংশ নেতাই এর উল্টো পথের যাত্রী । কেউ বিবাহিত, কেউবা ব্যবসায়ী, কেউ বা ভবিষ্যত ব্যবসার তহবিল সংগ্রহে ব্যাস্ত । ফলে এ সময়ের অধিকাংশ ছাত্রনেতারা এক ধরনের দালাল । যারা নিজেদের অক্ষমতা ঢাকতে এবং অরাজনৈতিক কাজগুলো চালানোর জন্য সংগঠনের ভেতর গ্রুপ তৈরী করে । এই গ্রুপের কাজ ভবিষ্যতের ত্যাগী নেতা তৈরী নয়, বরং তাদের ক্ষমতা সুরক্ষিত রাখার ক্যাডার বাহিনী । আবার প্রতিটি সংগঠনেই এর বিপরীত চিত্র রয়েছে । যারা রাজনৈতিক ভাবেই সংগঠন পরিচালনা করতে চায় । কিন্তু ক্ষমতাশালী নেতাদের কাছে তারা অসহায় । কারণ তাদের না আছে অর্থশক্তি না আছে ক্যাডার বাহিনী । ফলে সমগ্র ছাত্র রাজনীতি বন্দী হয়ে যায় ব্যবসায়ীদের দখলে । যেখানে ছাত্র রাজনীতিতে নিয়ন্তন থাকর কথা পার্টি রাজনীতির সেখানে নিয়ন্তিত হয় ব্যবসায়ীদের দ্বারা । ফলে পার্টি যেমন তার ভবিষ্যত নেতৃত্ব তৈরী করতে পারে না তেমনি ছাত্রদের মনেও ছাত্র রাজনীতি সম্পর্কে বিরুপ ধারনা সৃষ্টি হয় । দেশ হারায় যোগ্য নেতৃত্ব । ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই পার্টিগুলোর উচিৎ যোগ্য ছাত্রনেতাদের থেকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নির্বাচন করা । পকেট কমিটি গড়ার মানসিকতা ছাত্র রাজনীতি কে রাজনৈতিক নেতাদের কাছথেকে কেড়ে নিয়ে ব্যবসায়ী বান্ধব ছাত্র রাজনৈতিক সংগঠন ও ছাত্রনেতা তৈরী করছে । ব্যবসায়ী বান্ধব নয় ত্যগী পরিশ্রমী ও আদর্শিক ছাত্র নেতারাই পার্টির সুনাম বৃদ্ধি করে এবং আজীবন পার্টির সম্পদ হয়ে থাকে । -লেখকঃ সাবেক ছাত্রনেতা